এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > দলবদলের রাজনীতি পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করল বাংলা? দলবদলুদের নিয়ে বাঙালির জনমত কি উঠে এল?

দলবদলের রাজনীতি পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করল বাংলা? দলবদলুদের নিয়ে বাঙালির জনমত কি উঠে এল?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – হাওয়া যতই তীব্র হোক না কেন, এক ডাল থেকে অন্য ডালে হঠাৎ করেই পা গলিয়ে দেওয়া নেতাদের যে খুব একটা পছন্দ করছেন না বাংলার মানুষ তাই এবারের নির্বাচনী কার্যত স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির হাওয়া তীব্র ভাবে ফুটে উঠেছিল। কিন্তু যতই গেরুয়া হাওয়া তীব্র হোক না কেন, বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূল থেকে আসা প্রাক্তন বিধায়ক এবং প্রাক্তন মন্ত্রীদের বিজেপি প্রার্থী করলেও, বেশিরভাগ জায়গাতেই সেই সমস্ত দলবদলকারী নেতারা পরাজিত হয়েছেন। যার ফলে এখন প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, তাহলে কি বাংলার মানুষ দলবদলকে খুব একটা ভালো চোখে মেনে নিলেন না?

আর তাই এবারের নির্বাচনে বেছে বেছে একদল থেকে অন্য দলে যোগদান করা নেতারা পরাজিত হলেন! এক্ষেত্রে বিজেপি বা তৃণমূল ফ্যাক্টর নয় বলেই মনে করছেন একাংশ। সবথেকে বেশি ফ্যাক্টর সেই সমস্ত নেতারা। যাদেরকে মানুষ একদলের প্রতীকে চিনলেও পরবর্তীতে তারা আরেক দলে গিয়ে যোগ দিয়েছেন। অর্থাৎ নেতাদের এই দলবদল যে বাংলার মানুষ ভালো চোখে মেনে নিলেন না, তাই এবারের নির্বাচন থেকে উঠে এল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জানা গেছে, বিজেপির পক্ষ থেকে তৃণমূল এবং সিপিএম থেকে আসা 34 জনকে এবারে বিধানসভা নির্বাচনে টিকিট দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এর মধ্যে তৃণমূলের 3 জন এবং সিপিএমের 2 জন বাদে আর কেউ জয়লাভ করতে পারেননি। স্বাভাবিক ভাবেই বিজেপির যোগদান পর্বকে ঘিরে এখন প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

এই সমস্ত নেতাদের বিজেপি গ্রহণ করাতে যেমন সারা রাজ্য জুড়ে বিজেপির ভালো ফল করা সম্ভব হয়নি, ঠিক তেমনই এই সমস্ত নেতাদের রাজনৈতিক ভবিষ্যতও এখন কার্যত প্রশ্নের মুখে পড়ে গেল বলে দাবি করছেন একাংশ। স্বাভাবিক ভাবেই জয় এবং পরাজয়ের বিষয় বাদেও বাংলা কি দলবদলকারী নেতাদের এখন প্রত্যাখ্যান করল! নানা মহলে এই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

একাংশ বলছেন, মানুষ অনেক ক্ষেত্রে নির্বাচনে যেমন ব্যক্তিকে দেখে, ঠিক তেমনই দেখে, কোন দলের প্রতীকে তারা লড়াই করছেন! সমসাময়িক বেশ কিছুদিন ধরে বাংলা রাজনীতিতে দলবদল নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছিল। বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল বা অন্যান্য দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান কার্যত প্রতিদিনের ব্যাপার হয়ে গিয়েছিল। আর অন্যান্য দল থেকে আসা হেভিওয়েট নেতা এবং প্রাক্তন জনপ্রতিনিধিদের এবারের নির্বাচনে টিকিট দিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টি।

তবে বেশিরভাগ আসনেই সেই সমস্ত দলবদল করা নেতারা পরাজিত হওয়ার পরেই বিজেপি সহ নানা দলের অন্দরে একটা বিষয়ে ভাবাতে শুরু করেছে। সকলেই বলছেন, বাংলার মানুষ এবার দলবদল করা নেতাদের যে মেনে নিতে পারছেন না, তা এই রায় থেকেই পরিস্কার। এবারের নির্বাচন ভবিষ্যতের জন্য একটা হলেও শিক্ষণীয় বার্তা দিয়ে গেল। যে বার্তার মধ্যে দিয়ে ভবিষ্যতে প্রতিটা রাজনৈতিক দল মানুষের এই রায়কে মাথায় নিয়ে দলবদলকারী নংতাদের বেশি প্রাধান্য দেওয়ার আগে দু’বার হলেও ভাববেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!