এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > রাজ্যে প্রকৃত গণতন্ত্র ফেরাতে ‘বিশেষ’ পদক্ষেপের আবেদন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের

রাজ্যে প্রকৃত গণতন্ত্র ফেরাতে ‘বিশেষ’ পদক্ষেপের আবেদন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের



গতকাল কলকাতা হাইকোর্টে সিপিএমের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দারের ডিভিশন বেঞ্চ এক ঐতিহাসিক রায়ে জানিয়ে দেয় মনোনয়ন পর্বের শেষদিন অর্থাৎ গত ২৩ শে এপ্রিল, বিকেল ৩ টে পর্যন্ত রাজ্য সিপিএমের তরফে যতগুলি মনোনয়ন ইমেলে জমা পড়েছে সেগুলি রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে গ্রহণ করতে হবে এবং তারমধ্যে যেগুলি বৈধ সেগুলির পরিপ্রেক্ষিতে নতুন করে প্রার্থীতালিকা প্রকাশ করতে হবে। যদিও কলকাতা হাইকোর্টের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দেশের শীর্ষ আদালতে আজ মামলা করেছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। অন্যদিকে গতকালই বিজেপি নেতা প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁদের তরফেও প্রায় ২ হাজার মনোনয়ন ইমেলে কমিশনকে পাঠানো আছে, তাই সেগুলিকেও মান্যতা দিতে তাঁরা এবার আদালতের দ্বারস্থ হবেন।

এই পরিস্থিতিতে মুখ খুললেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, হাইকোর্ট যখন অনলাইন মনোনয়নকে মান্যতা দিয়েছে, তখন সুষ্ঠু ভোটের লক্ষ্যে আর একটু সময় ব্যয় করে সবাইকে সুযোগ দেওয়া উচিত। সুযোগ পেলে আরও লক্ষাধিক মনোনয়ন হবে বলে আমার অনুমান। তাহলে সবাই ভোটে লড়ার সুযোগ পাবে, প্রকৃত গণতন্ত্র ফিরবে রাজ্যে। মুখোশধারীরা নির্বাচনকে কুক্ষিগত করে রেখেছে। ফলে হিংসাত্মক ঘটনা আর সন্ত্রাসে ছেয়ে গিয়েছে প্রাক-ভোট পর্ব – মানুষ আতঙ্কিত। এই অবস্থায় মানুষ স্বেচ্ছায় মনোনয়ন পেশ করতে পারেনি। হাইকোর্ট এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করায় তাঁরা এখন ভরসা পাচ্ছেন, তাই তাঁরা নির্দ্বিধায় এখন মনোনয়ন করতে পারবেন। অবশ্যই আদালত যদি সেই সুযোগ দেন তবেই তা সম্ভব। এখনও যাঁরা মনোনয়ন দিতে ইচ্ছুক তাঁদের মনোনয়ন গ্রহণ করা হোক ই-মেলের মাধ্যমে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!