এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিরোধীদের অভিযোগকে কার্যত স্বীকার করে নিয়ে বড়সড় দাবি দিলীপ ঘোষের, মন্তব্য ঘিরে জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে

বিরোধীদের অভিযোগকে কার্যত স্বীকার করে নিয়ে বড়সড় দাবি দিলীপ ঘোষের, মন্তব্য ঘিরে জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে



বিরোধীদের অভিযোগকে কার্যত স্বীকার করে নিয়ে বড়সড় দাবি করলেন বিজেপির বর্তমান রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মন্তব্য ঘিরে জোর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্যে।বিজেপির বিরুদ্ধে বরাবরই ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতি করার অভিযোগ উঠেছে বিরোধীদের তরফ থেকে। আর এদিন কার্যত সেই অভিযোগকে স্বীকার করে নিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করলেন – ‘হিন্দু-মুসলমানকে ভাগ করছি। ঠিক করছি। তোর বাপের কী রে? ‘

CAA র সমর্থনে বৃহস্পতিবার ঝাড়গ্রামের পাঁচমাথা মোড়ে দলীয় সভা অনুষ্ঠিত হয় বিজেপির তরফ থেকে। আর এই নিয়েই দিলীপবাবু দাবি করেন যে, ‘হিন্দু-মুসলমানকে ভাগ করছি। ঠিক করছি। তোর বাপের কী রে?ক্ষমতা থাকলে আটকা। আগে তো ধর্মের ভিত্তিতেই দেশ ভাগ হয়েছে। কোটি কোটি মানুষকে উদ্বাস্তু হতে হয়েছে।’

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর সেখানেই দিলীপবাবু আরো দাবি করেন যে , “নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাশ হওয়ার পর অনেকেই (বেআইনি অনুপ্রবেশকারী) এখন সীমান্ত দিয়ে পাকিস্তান, বাংলাদেশে পালাতে চাইছে। ওরা বুঝে গিয়েছে এখানে থাকলে জেলে ঢুকিয়ে দেবে। মুখ্যমন্ত্রী ভোট ব্যাংকের স্বার্থে তাদের আটকাতে চাইছেন। কোনও বিদেশিকে এদেশে থেকে লুঠ করে খেতে দেব না। আর যাঁরা অত্যাচারিত হয়ে বাধ্য হয়ে এদেশে এসেছেন তাঁদের নাগরিকত্ব দেব।”

আর এই নিয়েই বিরোধীরা ফের সরব হয়েছেন যে তারা যে অভিযোগ করেন বিজেপির সম্পর্কে তা ঠিক। আর সে কথাই কোথাও না কোথাও স্বীকার করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। রাজনৈতিকমহলের মতে, এই দাবি নিয়েই এবার বিরোধীরা প্রচারে ঝড় তুলবে। এখন কিভাবে একে সামাল দেয় রাজ্য বিজেপি তা দেখার।

জানা যাচ্ছে এদিনের সভাতে উপস্থিত ছিলেন ঝাড়গ্রামের সাংসদ কুনার হেমব্রম, সাংসদ ডাঃ সুভাষ সরকার, রাজ্য সম্পাদক তুষারকান্তি ঘোষ, অভিনেত্রী রিমঝিম মিত্র, দলের ঝাড়গ্রাম জেলার সভাপতি সুখময় শতপথি প্রমুখ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!