এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > এমন দিন আসছে দিলীপ ঘোষকে হাতে জোড়াফুলের পতাকা তুলে নিতে হবে! বিস্ফোরক মমতার হেভিওয়েট মন্ত্রী

এমন দিন আসছে দিলীপ ঘোষকে হাতে জোড়াফুলের পতাকা তুলে নিতে হবে! বিস্ফোরক মমতার হেভিওয়েট মন্ত্রী



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাংলার শাসনভার আদায় করে নিতে উঠে পড়ে লেগেছে রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি। সেখানে সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে সামনে এসেছে বিজেপি এবং তৃণমূলের নাম। নির্বাচনী প্রচারে যেখানে এই দুই দলের নেতাকর্মীদের একে অপরকে কটাক্ষ করা নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে, সেখানে সম্প্রতি বিজেপিকে কটাক্ষ করতে দেখা গেছে এক তৃণমূল মন্ত্রীকে।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের পর এরাজ্যে তিনি আর থাকতে পারবেন না। আর যদিও বা থাকেন সেখানে হয়তো তাঁকে দেখা যাবে, রাজ্যের বাইরে কোনও প্রান্তিক এলাকায় সংগঠনের কাজ করতে। রবিবার কাঁথির দেশপ্রাণ ব্লকের ধোবাবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের কামারবেড়িয়া এলাকায় তৃণমূলের এক জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এমনই কথা বলতে শোনা গেছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের মন্ত্রী ব্রাত্য বসুকে।

তাঁর কথায়, এটাও অসম্ভব নয় যে, একদিন হয়তো এমন কোনও মঞ্চে এসে দিলীপবাবুকে জোড়াফুলের পতাকা নিজের হাতে তুলে নিতে হচ্ছে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনমুখী প্রকল্পগুলিকে সকলের সামনে নিয়ে আসার উদ্দেশ্যেই এই সভার আয়োজন করা হয় বলে জানা গেছে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যদিও সেই মঞ্চে ব্রাত্যবাবু ছাড়াও প্রাক্তন বিধায়ক নির্বেদ রায়, দেশপ্রাণ পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তরুণ জানা সহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন এবং তাঁরাও বক্তব্য রেখেছেন বলে জানা গেছে। এদিন সভায় ব্লকের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৬৫০ জন বিজেপি কর্মী-সমর্থক তৃণমূলে যোগ দেন। আর সেইসময় তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিয়েই এমন মন্তব্য করেন তিনি।

এদিন ব্রাত্যবসু বলেন, তাঁর মতে দেশ এখন আম্বানি-আদানিদের মতো শিল্পপতিদের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। কিন্তু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কোনও শিল্পপতি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নন বলেই দাবি করেছেন তিনি। তাঁর কথায়, বিজেপি এখন গেরুয়া রং দিয়ে সারা দেশকে ঢাকতে চাইছে।

তাঁর কথায়, বিজেপির প্রয়াস গঙ্গার পাড়ে এসে আটকে গিয়েছে। আর তার কারণ হিসেবে বাংলার ‘দুর্গা’ তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথাই উল্লেখ করেছেন তিনি। তাঁর কথায়, মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিরোধের জন্যই বিজেপিকে পিছু হটতে হয়েছে। তাই বিজেপি নানা চক্রান্ত করে চলেছে। তবে মানুষ সরকারের পাশে থাকায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছেন, তাতে বিজেপির রথের চাকা আটকে গিয়েছে বলেই মন্তব্য করতে দেখা গেছে তাঁকে।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!