এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পুরভোটে তৃণমূলকে হারাতে অতীতের কথা ধরলেন দিলীপ ঘোষ

পুরভোটে তৃণমূলকে হারাতে অতীতের কথা ধরলেন দিলীপ ঘোষ



লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় ভালো ফল করলেও, যত দিন যাচ্ছে ততই তাদের অবস্থা খারাপ হতে শুরু করেছে। বর্তমানে নাগরিকত্ব সংশোধনী ইস্যু নিয়ে তৃণমূলের প্রচারে বিজেপি কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে চলে গিয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে 2021 এ বাংলাকে দখল করার টার্গেট নেওয়া বিজেপিকে পৌরসভা নির্বাচনে ভালো ফল করতেই হবে, তা বুঝতে পেরেছে পদ্ম শিবির। আর তাই এবার চলতি বছরেই পৌরসভা নির্বাচন ধরে নিয়ে ইতিমধ্যেই নিজ নিজ আঙ্গিকে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

সূত্রের খবর, কাটোয়া পৌরসভা নির্বাচনে ভালো ফল করার টার্গেট নিয়ে এদিন ময়দানে নামতে দেখা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষকে। যেখানে বিগত দিনে তৃণমূলের সন্ত্রাসের কথা তুলে ধরে ঘাসফুল শিবিরকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করলেন বঙ্গ বিজেপির সেনাপতি।

সূত্রের খবর, এদিন বিজেপির পক্ষ থেকে কাটোয়ায় একটি মিছিল করা হয়। আর তারপরেই তৃণমূলের কার্যালয় থেকে কিছুটা দূরত্বে একটি জনসভা করেন দিলীপ ঘোষ। আর সেখান থেকেই বিগত দিনের সন্ত্রাসের ব্যাপারে মুখ খুলে তৃণমূলকে একঘরে করে দেওয়ার চেষ্টা করেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি। তিনি বলেন, “কাটোয়ায় গতবারের ভোটের কথা মনে আছে! আপনারা ভোট দিতে যাচ্ছিলেন। আমি টিভিতে দেখছিলাম। দমাদ্দম বোম পড়ছে। তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা বন্ধুক হাতে দৌড়চ্ছে। আর এখানের যিনি মাননীয় চেয়ারম্যান, তিনি তো হাওয়া খারাপ দেখে লাফ দিয়ে ওপাশে চলে গেলেন।”


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিজেপির একাংশ বলছেন, পৌরসভা নির্বাচনে বিজেপিকে এখানে ভালো ফল করতে গেলে বিগত দিনে তৃণমূলের সন্ত্রাসকে তুলে ধরা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। আর তাই তো সেই সন্ত্রাসকে তুলে ধরে তৃণমূলকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করলেন দিলীপ ঘোষ। তবে দীলিপবাবুর এই অভিযোগ মানতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন এই এই প্রসঙ্গে শহর তৃণমূল সভাপতি অমর রাম বলেন, “সন্ত্রাস হলে তৃণমূল কিভাবে হারল! বরঞ্চ ওই দিন তো আমাদের কর্মীকেই তো খুন হতে হয়েছিল।”

অন্যদিকে কাটোয়া পৌরসভার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে দিলীপ ঘোষের কটাক্ষের পাল্টা জবাব দিয়েছেন সেই রবীন্দ্রনাথবাবু। এদিন তিনি বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের শরিক হতেই তৃণমূলে এসেছিলাম।” এদিকে রবিবাবুর দলবদল নিয়ে তাকে এদিন কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তার প্রাক্তন দল কংগ্রেসের কাটোয়া শহরের সম্পাদক শুভাশিষ সামন্ত।

এদিন তিনি বলেন, “দলের বিধায়কের দলবদল মানুষ ভালোভাবে নেননি। তাই 2016 বিধানসভা ভোটে অল্প ব্যবধানে এবং 2019 এ তৃণমূলকে কাটোয়ার প্রত্যাখ্যান।” তবে যে যাই বলুন না কেন, গোটা পরিস্থিতি যে আগামী পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অত্যন্ত ঘোরালো হয়ে উঠছে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত বিশ্লেষকরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!