এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > দিকে দিকে তৃণমূল ভেঙে বিজেপিতে যোগ, একুশের লক্ষ্য কি শুরুতেই শেষ?

দিকে দিকে তৃণমূল ভেঙে বিজেপিতে যোগ, একুশের লক্ষ্য কি শুরুতেই শেষ?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – যতই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রাম থেকে বড়সড় ঘোষণা করে দলকে চাঙ্গা করার চেষ্টা চালান, তৃণমূলের ভাঙ্গন কিন্তু রয়ে গেছে সেই একই জায়গাতে। বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই তৃণমূল শিবির থেকে একের পর এক নেতা, মন্ত্রী, সাংসদ, বিধায়ক দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন গেরুয়া শিবিরে। এবারেও তার অন্যথা হলোনা। দক্ষিণ 24 পরগনার ক্যানিং বিধানসভায় প্রায় 500 কর্মী নিয়ে জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের ক্যানিং 1 ব্লকের সহ-সভাপতি যোগদান করলেন গেরুয়া শিবিরে। স্বাভাবিকভাবেই ক্যানিং এলাকায় বিজেপির সংগঠন অনেকটাই জোরালো হলো বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সূত্রের খবর, ক্যানিং 1 নম্বর ব্লকের সহ-সভাপতি অর্ণব রায়ের বিজেপিতে যোগদান করার খবর শুনে তাঁর অনুগামীরা এলাকার তৃণমূল কার্যালয়ের বোর্ড সরিয়ে বিজেপির দলীয় প্রতীক দেওয়া বোর্ড লাগিয়ে দেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনা আরো বেশি চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে রাজনৈতিক মহলে। অন্যদিকে বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা দলবল নিয়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ায় খুব স্বাভাবিকভাবেই তীব্র অস্বস্তির মুখে তৃণমূল। যদিও জানা যাচ্ছে, ক্যানিংয়ের এই বর্ষীয়ান নেতা এই প্রথম নয়, এর আগেও তিনি দল বদল করেই কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে এসেছিলেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এবার বিজেপিতে গেলেন। বিজেপিতে যাওয়ার কারণ হিসেবে অর্ণব রায়ও জানিয়েছেন একই কারণ যা এখন তৃণমূল ছাড়লে প্রধান কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর তা হল, দলে থেকেও কাজ করার সুযোগ পাচ্ছেননা, আর তাই দল পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত। অন্যদিকে তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, অর্ণব রায় দল ছাড়লে দলের কোনো ক্ষতি হবেনা। পাশাপাশি এদিন জানা গেছে, নদীয়াতেও তৃণমূল কংগ্রেসের সংখ্যালঘু ভোটব্যাংকে বড়োসড়ো ধ্বস নেমেছে। নদীয়ার শান্তিপুরে প্রায় 200 র বেশি কর্মী বিজেপিতে যোগ দিলেন।

সূত্রের খবর,  এই 200 কর্মীর মধ্যে বেশিরভাগই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের। এত বিশাল সংখ্যক সংখ্যালঘু সম্প্রদায় গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ায় খুব স্বাভাবিকভাবেই গেরুয়া শিবিরের উচ্ছ্বাস চোখে পড়ার মতো। রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, যেভাবে তৃণমূল শিবিরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করছে, তাতে ঘাসফুল দুর্গের একুশের বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের লক্ষ্য যথেষ্ট চাপের মুখে। তার ওপর দেখা যাচ্ছে, তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া যোগদান পর্ব চলছেই। এই অবস্থায় ভাঙ্গনরোধে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করেন তৃণমূল সুপ্রিমো, এখন সে দিকেই নজর সবার।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!