এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দিদিকে বলোর পাল্টা বিজেপিকে বলো, পুরসভা নির্বাচনের আগে মাস্টারস্ট্রোক গেরুয়া শিবিরের!

দিদিকে বলোর পাল্টা বিজেপিকে বলো, পুরসভা নির্বাচনের আগে মাস্টারস্ট্রোক গেরুয়া শিবিরের!



গত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস অনেক আসনে পরাজিত হওয়ার পরই দলের ভাবমূর্তি স্বচ্ছ করতে দলের রননীতিকার করা হয় ভোটগুরু প্রশান্ত কিশোরকে। যেখানে দায়িত্ব নেওয়ার সাথে সাথেই দিদিকে বলো কর্মসূচি চালু করে সাধারণ মানুষের অভাব, অভিযোগ শুনতে শুরু করে তৃণমূল কংগ্রেস। আর এর পেছনে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিষ্ক রয়েছে বলেই দাবি করে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

এমনকি এই দিদিকে বলো কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে গোটা তৃণমূলের জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ শুনে তার সমাধান করার চেষ্টাও হয়। অনেক ক্ষেত্রে মানুষ বেশ ভালই লাভবান হন এই কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে। যার ফলে তৃণমূল অনেক জায়গাতেই ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে। আর এবার পৌরসভা ভোটের আগে সেই তৃণমূলের “দিদিকে বল” কর্মসূচিকেই দমিয়ে দিতে পাল্টা নিজেদের পক্ষ থেকে একটি কর্মসূচি নিয়ে এল ভারতীয় জনতা পার্টি। যা আগামী পৌরভোটে সাফল্য পাওয়া এবং তৃণমূলের দিদিকে বল কর্মসূচিকে মাত করতেই বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, শনিবার কলকাতায় আসন্ন পৌরসভা ভোটের প্রস্তুতি নিয়ে একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠক করে ভারতীয় জনতা পার্টি। যেখানে সমস্ত সাংসদ, বিধায়ক, জেলা সভাপতি সহ উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির দুই কেন্দ্রীয় নেতা শিবপ্রকাশ, অরবিন্দ মেনন এবং রাজ্য নেতৃত্বরা। আর সেখানেই কোন পৌরসভায় বর্তমানে কি পরিস্থিতি রয়েছে, কিভাবে সেখানকার নির্বাচনে সাফল্য পাওয়া যায়, তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এরপরই তৃণমূলের দিদিকে বলো কর্মসূচিকে মাত করতে বিজেপিকে বলো কর্মসূচির কথা ঘোষণা করে ভারতীয় জনতা পার্টি।

সূত্রের খবর, এই বিজেপিকে বলো কর্মসূচির মাধ্যমে একটি টোল ফ্রি নম্বর দেওয়া হবে। যেখানে তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভায় যে সমস্ত দুর্নীতি হচ্ছে, তার বিরুদ্ধে বিজেপিকে এই নম্বরে ফোন করে জানাতে পারবেন সাধারন মানুষ। আর সেই সাধারণ মানুষের কাছ থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ শুনে, তা প্রচারে তুলে ধরে শাসক দলকে অস্বস্তিতে ফেলবে ভারতীয় জনতা পার্টি বলে মত একাংশের। কিন্তু হুবহু তৃণমূলের কায়দায় দিদিকে বলো কর্মসূচির মত বিজেপিকে বলো কর্মসূচি করে বিজেপি কি তৃণমূলকে নকল করল না!

একাংশ বলছেন, তৃণমূলের এই দিদিকে বলো কর্মসূচি তৃণমূলকে কিছুটা হলেও সাহায্য করেছে। কিন্তু পৌরভোটের আগে সেই তৃণমূলকে অস্বস্তিতে ফেলতে তাদের দুর্নীতির খবর নিয়ে বিজেপিকে বলো কর্মসূচি চালু করে সাধারণ মানুষের মন বুঝতে চাইছে ভারতীয় জনতা পার্টি। যা আগামী পৌরসভা এবং তারপরের বিধানসভা নির্বাচনে তাদের অনেকটাই সাহায্য করবে বলে দাবি পর্যবেক্ষকদের। এখন এই বিজেপিকে বলো কর্মসূচি করে তৃণমূলের দিদিকে বলো কর্মসূচিকে কতটা দমিয়ে দিতে পারেন বিজেপি নেতারা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!