এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > দায়িত্ব ফিরে পেতেই নিজ গড়ে “শক্তি প্রদর্শন” দিব্যেন্দুর! দূরত্ববিধি শিকেয়, উপচে পড়ল ভিড়!

দায়িত্ব ফিরে পেতেই নিজ গড়ে “শক্তি প্রদর্শন” দিব্যেন্দুর! দূরত্ববিধি শিকেয়, উপচে পড়ল ভিড়!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তৃণমূলের সাংগঠনিক বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারী গুরুত্বপূর্ণ জায়গা পাবেন বলে মনে করা হলেও তাকে সেরকম কোন জায়গা দেয়া হয়নি উল্টে তার হাতে যে সমস্ত জেলা ছিল সেখান থেকে পর্যবেক্ষণ তুলে দিয়ে তার ডানা ছাটা হয়েছে। এদিকে শুভেন্দু অধিকারীর গুরুত্ব কমানোর পরেই ধীরে ধীরে তার ভাই দিব্যেন্দু অধিকারীকে একটি পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। যার পরে তীব্র বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে।

যে অধিকারী পরিবার সমস্ত সংগঠন সামলাত, সেই অধিকারী পরিবারের ডানা এভাবে ছাটা হচ্ছে কেন, তা নিয়ে তৈরি হয় সংশয়। তবে করোনা ভাইরাসের মধ্যেও যেভাবে দিব্যেন্দু অধিকারী আবার পুনরায় তাঁর পদ পেয়ে সক্রিয় হতে শুরু করলেন, তা নিয়ে ব্যাপক প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। জানা গেছে, বুধবার হলদিয়ার টাউনশিপে একটি জনসভা করেন তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু সেখানে কোনরূপ সামাজিক দূরত্ব বিধি মানা হয়নি। তবে সমস্ত সামাজিক দূরত্ব মেনেই এই সভা করা হয়েছে বলে জানান সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী। কিন্তু তিনি যে কথাই বলুন না কেন, যেভাবে বিন্দুমাত্র সামাজিক দূরত্ব পালন করা হল না, তাতে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক। অনেকে বলছেন, দিব্যেন্দুবাবুকে সরিয়ে দিয়ে দেবপ্রসাদবাবুকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এবার সেই দিব্যেন্দুবাবু জনসভা করে সামাজিক দূরত্ব পালন না করায় তৃণমূলের বিরোধী গোষ্ঠী সক্রিয় হয়ে তার বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলতে পারে।

যার ফলে তৃণমূলের অন্তর্কোন্দল প্রকাশ্যে আসার আশঙ্কা করছেন একাংশ। এদিকে এই ব্যাপারে পাল্টা প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন তমলুক জেলা সাংগঠনিক বিজেপির সভাপতি নবারুণ নায়েক। এদিন তিনি বলেন, “সামাজিক দূরত্ব বিধি না মেনে ওরা মানুষের সর্বনাশ ডেকে আনছে। এত লোকের জনসমাগম হল, পুলিশ বাধা দিল না!” সব মিলিয়ে এবার দিব্যেন্দু অধিকারী দায়িত্ব পেতেই যেভাবে নতুন করে সক্রিয় হতে শুরু করেছেন এবং তার ফলে যেভাবে সামাজিক দূরত্ব বিঘ্নিত হল, তা নিয়ে এখন নানা মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!