এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দেশজুড়ে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, কিন্তু তার মধ্যেই দুঃসংবাদ প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের জন্য

দেশজুড়ে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, কিন্তু তার মধ্যেই দুঃসংবাদ প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের জন্য



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যে চলছে বিধানসভা নির্বাচন আর তার মধ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই অবস্থায় আবারও লড়াইতে ফিরে এসেছেন সামনের সারির করোনা যোদ্ধারা। গতবছর লকডাউনের পর থেকে দেশের সমস্ত চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে একটি 50 লক্ষ টাকার জীবন বীমা প্রকল্প চালু হয়েছিল। কিন্তু দেশে যখন দ্বিতীয়বার করোনা ঢেউ ধাক্কা মেরেছে, ঠিক সেই সময় কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে বন্ধ করে দেওয়া হল করোনা যোদ্ধাদের জন্য চালু হওয়া বীমা। এই নিয়ে ইতিমধ্যেই সমালোচনা উঠেছে তুঙ্গে রাজনৈতিক মহলে।

প্রসঙ্গত, করোনা অতিমারির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে যদি কোন চিকিৎসক, নার্স বা স্বাস্থ্য কর্মীর মৃত্যু হয় তাহলে তাঁর পরিবারের হাতে 50 লক্ষ টাকার সাহায্য তুলে দেওয়ার কথা ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে। আর সেই কারণেই একটি বিমা পরিষেবা চালু হয় প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্যাকেজের আওতায়। পুরসভার নিকাশি কর্মী এবং আশা কর্মীদেরও এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছিল বলে জানা যায়। এদিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এখনো পর্যন্ত মোট 287 জন করোনা যোদ্ধার পরিবার এই বীমার সুবিধা পেয়েছেন। তবে এবার থেকে আর কোন করোনা যোদ্ধার পরিবার এই সাহায্য পাবেন না বলে জানানো হয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রাথমিকভাবে, 2020 সালের 30 মার্চ থেকে থেকে তিন মাসের জন্য এই বিমার সুবিধা চালু হয় পরে। সেই মেয়াদ বাড়িয়ে 2021 সালের 24 শে মার্চ পর্যন্ত করা হয়েছিল। সূত্রের খবর, মার্চের পর থেকে এই জীবন বীমা প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছেনা তাই মার্চ মাসের 24 তারিখের আগে যাদের মৃত্যু হবে, তাঁদের পরিবার 50 লক্ষ টাকার বীমার সুবিধা পাবেন। কিন্তু তারপর থেকে আর কেউ এই সুবিধা পাবেন না। তবে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, নতুন করে করোনা যোদ্ধাদের জন্য আবারও একটি প্রকল্প চালু করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে, যা খুব শীঘ্রই বাস্তবায়িত হবে বলে জানানো হয়েছে। সারা দেশ জুড়ে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে দৈনিক প্রায় পৌনে 3 লক্ষের গোড়ায়।

প্রতিদিন প্রায় 1600 মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। আর তাদের মধ্যে একটা বড় অংশ হলো করোনা যোদ্ধাদের। ভয়ঙ্কর ব্যাপার হলো, যেসব করোনা যোদ্ধারা টিকা নিয়েছিলেন, তাঁরাও কিন্তু আক্রান্ত হচ্ছেন করোনায়। এসব সত্ত্বেও করোনা যোদ্ধারা ক্রমাগত লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন সাধারণ মানুষের সেবা করার জন্য। তবে সেক্ষেত্রে বীমা প্রকল্পটি বন্ধ করে দেওয়ায় শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। তবে কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী নতুন করে কোনো প্রকল্প বাস্তবায়িত যতদিন না হচ্ছে, ততদিন এই সমালোচনা চলবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। আপাতত লড়াই চলছে করোনার সাথে, এই অতিমারিকে দ্রুত কমিয়ে ফেলার চেষ্টা চালাচ্ছেন করোনা যোদ্ধারা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!