এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > “দেশের প্রধানমন্ত্রী মিথ্যে বলছে, সাধারণ মানুষ কী করবে। আমাকে ভ্যাঙাচ্ছে।” – প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর

“দেশের প্রধানমন্ত্রী মিথ্যে বলছে, সাধারণ মানুষ কী করবে। আমাকে ভ্যাঙাচ্ছে।” – প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ কালচিনির জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রীকে প্রবল ভাষায় আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী জানান, ৩১টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। সকাল থেকে তিনি খবর পাচ্ছেন যে, বিজেপি হারতে চলেছে। তিনি অভিযোগ করলেন, দেশের প্রধানমন্ত্রী মিথ্যা কথা বলছেন। সাধারণ মানুষ কি করবেন? তাঁকে ভ্যাঙানো হচ্ছে। তিনি জানান, দেশের ২১ জন জওয়ান মারা গেলেন, কিন্তু কোনো ভ্রুক্ষেপই নেই বিজেপির। কোটি কোটি টাকা ওড়ানো হচ্ছে। ভোটের আগে টাকা বিল করছে বিজেপি। প্রধানমন্ত্রীর উদেশ্যে তিনি জানালেন, প্রধানমন্ত্রী ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও ছাড়িয়ে গেছেন।

মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, নির্বাচন কমিশন, কেন্দ্রীয় বাহিনী যদি ভালো ভাবে কাজ করে থাকে, তবে নির্বাচন চলাকালীন সাত-আটটি হত্যাকাণ্ড কিভাবে ঘটে গেল? তিনি অভিযোগ করেছেন, বিজেপির গুন্ডারা বাইরে থেকে এসে গন্ডগোল পাকাচ্ছে। খানাকুলের প্রার্থী নাজমুলকে মারা হয়েছে। শওকত মোল্লাকে বুথে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। তিনি কটাক্ষ করেছেন, গুন্ডামি করে কখনোই ভোটে জেতা যায় না।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, গতকাল বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা সভা করতে এসেছিলেন। দেখেছেন সভায় লোক নেই, তখনই তিনি দিল্লি চলে গেছেন। দিল্লি গিয়ে তিনি বৈঠক করেছেন। এরপর সেখান থেকে তিনি সিআরপিএফকে আদেশ দিয়েছেন অত্যাচার চালানোর জন্য।

তিনি অভিযোগ করেছেন, সিআরপিএফ সুজাতা মন্ডলকে মেরেছে। সিআরপিএফ বিজেপিকে ভোট দানের আদেশ দিচ্ছে। তিনি কমিশনকে বিনম্র ভাষায় অনুরোধ করেছেন, এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে। একশটা অভিযোগ তিনি করেছেন। তিনি হুশিয়ারি দিয়ে জানান, এই কাজে যারা জড়িত আছেন, পরে তাদের দেখে নেবেন, কেউ ছাড় পাবেন না।

মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন করেছেন, কি করে দেশ চলবে? সবকিছু বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে। ব্যাংক, এলআইসি, রেল, কয়লা বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তাঁরা বাংলায় কোন কিছু বিক্রি করতে দেননি। জনতার উদ্দেশ্যে তিনি জানালেন, তৃণমূল প্রার্থীদের জিতিয়ে দিতে। তাঁরাই সরকার গড়বেন। পাহাড়ে শান্তি আছে, শান্তি আছে তরাই ডুয়ার্সে। পাহাড়ের তৃণমূল লড়ছে না। সমতলের সমস্ত মানুষকে তিনি অনুরোধ করলেন যে, তৃণমূলকে ভোট দিতে। নেপালি, আদিবাসী, উপজাতি সকলকে ভোট দেবার অনুরোধ জানালেন তিনি।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!