এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দিল্লির অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি নিয়ে চিন্তায় কেন্দ্রীয় মহল, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আসরে হেভিওয়েট বিজেপি নেতারা

দিল্লির অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি নিয়ে চিন্তায় কেন্দ্রীয় মহল, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আসরে হেভিওয়েট বিজেপি নেতারা



সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং সিএএর সমর্থক ও বিরোধীদের সংঘর্ষে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে দিল্লিতে। বেশ কিছুদিন ধরেই সংশোধনী নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে সারাদেশে বিক্ষোভের আগুন জ্বলছিল ধিকি ধিকি। কিন্তু এবার তা বিস্ফোরণের আকার নিয়েছে। রাজধানী দিল্লিতে যেভাবে অশান্তির আগুন জ্বলেছে তা কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছেনা বলে দাবি রাজনৈতিক মহলের। এতদিন ধরে দিল্লির শাহীনবাগে যে বিক্ষোভ সমাবেশ চলছিল তা এবার সোজাসুজি সম্মুখসমরে পরিণত হয়েছে। দুই পক্ষই একে অপরকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়ছে। ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ একের পর এক পদক্ষেপ গ্রহণ করছে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে, দিল্লির অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি নিয়ে বিজেপির অন্দরেই ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এর আগেও দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রার্থী মনোজ তিওয়ারি বলেছিলেন, ‘আমাদের দলের এমন কয়েকজন নেতার বিতর্কিত মন্তব্য মানুষ ভালোভাবে নেয়নি।’ এদিন দিল্লির বিধ্বংস অশান্তির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি আবারও বলে উঠলেন, ‘এমন কিছু বলবেন না যাতে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। মানুষের মাঝে ভুল বার্তা যায়।’ বুধবার দিল্লির পরিস্থিতি বিবেচনা করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সর্বদলীয় বৈঠক ডাকেন। সেখানে মনোজ তিওয়ারিও অংশগ্রহণ করেন। অমিত শাহও একইভাবে বলেছেন, ‘কেউ উস্কানিমূলক ভাষণ দেবেন না।’

অন্যদিকে দেখা গেছে, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জীর বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের জন্য বারংবার দেশজুড়ে বিভিন্ন সময় বেশ কিছু বিজেপি নেতারা উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছেন। এ প্রসঙ্গে এদিন দিল্লি বিজেপির অফিস থেকে জানানো হয়, ‘শ্রী তেওয়ারি দিল্লির প্রত্যেক বিজেপি নেতার কাছে আহ্বান জানিয়েছেন, শহরে শান্তি ফেরানোর জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করুন। কেউ উস্কানিমূলক ভাষণ দেবেন না। কেউ কেউ ইচ্ছা করে দিল্লির সাধারণ মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে।’ এখনো পর্যন্ত দিল্লির দাঙ্গায় প্রচুর মানুষ আহত হয়েছেন। নিহত হয়েছেন পুলিশ কর্মী সহ অন্তত কুড়ি জন। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হর্ষবর্ধন এর সঙ্গে নিহত কনস্টেবলের বাড়িতে হাজির হন দিল্লির বিজেপি নেতা মনোজ তিওয়ারি। এদিন তিনি দিল্লির বিভিন্ন হাসপাতালে আহতদের সঙ্গেও দেখা করেন বলে জানা গেছে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যত দিন যাচ্ছে, উত্তর পূর্ব দিল্লির পরিস্থিতি ততই ঘনঘোর হ‍য়ে উঠছে। এই অবস্থায় পরিস্থিতি সামলাতে দায়িত্ব নিয়েছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল স্বয়ং। তিনি সরেজমিনে তদন্ত করে দেখার জন্য উত্তর-পূর্ব দিল্লির দাঙ্গা বিধ্বস্ত এলাকায় হাজির হয়েছেন বলে জানা গেছে। অন্যদিকে, দিল্লীতে যে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় মহল। ইতিমধ্যে জানা গেছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তাঁর কেরল যাত্রা বাতিল করেছেন। দিল্লির এই পরিস্থিতিতে রাশ টানতে ইতিমধ্যে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল কমিশনার পদ গ্রহণ করেছেন নতুন আইপিএস কর্তা এস এন  শ্রীবাস্তব। জানা গেছে, ইতিমধ্যে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন। গোটা উত্তর-পূর্ব দিল্লি জুড়ে এই মুহূর্তে দমবন্ধকর পরিস্থিতি। চতুর্দিকে পুলিশ ও সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

এই মুহূর্তে দিল্লি শহরের অশান্তি কমানোর জন্য দেশের সর্বস্তর থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে। অন্যদিকে, উত্তর-পূর্ব দিল্লির সন্ত্রাসকে বাগে আনতে ইতিমধ্যে সেখানে জারি করা হয়েছে 144 ধারা। তবে এই ঘটনা নিয়ে বিরোধীরা তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে কেন্দ্রীয় শাসকের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বহুদিন ধরেই এনআরসি এবং সিএএ নিয়ে দেশবাসীর মনে ক্ষোভ জমা হচ্ছে। এবার সময় এসেছে পুরো বিষয়টি নিয়ে স্বচ্ছতা অবলম্বন করে সমাধান বার করার। অন্যদিকে রাজনৈতিক মহলের দাবি, নাগরিকত্ব ইস্যুকে কেন্দ্র করে আমেরিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতে এ ধরনের অশান্তি কেন্দ্রীয় সরকারকে যথেষ্ট লজ্জাজনক পরিস্থিতির মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছে। আপাতত পরিস্থিতি কোন দিকে এগোচ্ছে সেদিকে নজর রাখছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!