এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দিল্লিতে বিজেপির মহাবৈঠকের পরেই মুখে কুলুপ মুকুলের! বড়সড় ইঙ্গিত দিলেন দিলীপ! বাড়ছে জল্পনা

দিল্লিতে বিজেপির মহাবৈঠকের পরেই মুখে কুলুপ মুকুলের! বড়সড় ইঙ্গিত দিলেন দিলীপ! বাড়ছে জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –বিজেপির কাছে এখন প্রধান টার্গেট আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার ক্ষমতা দখল করা। আর তার জন্য রাজ্য সরকারের অস্বস্তি কিভাবে বাড়িয়ে দেওয়া যায়, তৃণমূলের বিরুদ্ধে কি কি ইস্যু নিয়ে আন্দোলনে নামা যায়, তা নিয়ে ব্লু প্রিন্ট সাজাতে শুরু করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। ইতিমধ্যেই রাজ্য স্তরের নেতারা দিল্লিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক শুরু করে দিয়েছে।

সূত্রের খবর, আজ থেকে দিল্লিতে বিজেপি রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বৈঠক শুরু হতে চলেছে‌। আগামী ছয় মাস কিভাবে বাংলায় বিজেপি তাদের রাজনৈতিক প্রচার চালাবে, তা ঠিক করতেই এই বৈঠক বলে খবর। জানা যায়, সোমবার রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায় এবং রাহুল সিনহা। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন কৈলাশ বিজয়বর্গী এবং অরবিন্দ মেনন। আর এই বৈঠকের পরই পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃংখলার পরিবেশ নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক এবং নির্বাচন কমিশনকে অভিযোগ জানানো হবে বলে জানিয়ে দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে বিরোধী নেতাকর্মীদের হত্যা করা হচ্ছে। সন্ত্রাসবাদী ও মাওবাদীদের প্রশ্রয় দেওয়া হচ্ছে। রাজ্যে যা আতঙ্কের বাতাবরণ রয়েছে, তাতে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া সম্ভব নয়। বিষয়টি নির্বাচন কমিশন ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে জানানো হবে।” আর দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এবার জল্পনা তৈরি হয়েছে, তাহলে কি রাজ্যে নির্বাচনের পরিবেশ নেই একথা তুলে ধরে পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসনের জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানাবে ভারতীয় জনতা পার্টি? এদিন দিলীপ ঘোষকে এই প্রশ্ন করা হলেও, তা সুকৌশলে এড়িয়ে যান তিনি।

বরঞ্চ তিনি বলেন, “ভোট এগিয়ে আসছে। তাই আগামী দিনে রণকৌশল কেমন হবে, তা ঠিক করার জন্য আজ এবং কাল আলোচনা হবে। প্রচার ও জনসংযোগের প্রশ্নে দল যা সিদ্ধান্ত নেবে, তা বুধবারের বৈঠকে সাংসদদের জানিয়ে দেওয়া হবে।” তবে এদিনের এই বৈঠকের পর দিলীপ ঘোষ সব কথা বললেও, মুকুল রায়ের নীরবতা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে গুঞ্জন। এদিন মুকুল রায়কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “যা বলার দিলীপ ঘোষ বলবেন।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু হঠাৎ করে কেন মুকুল রায় দীলিপবাবুর কোর্টে সমস্ত বল ঠেলে দিলেন! তা নিয়ে এবার নানা মহলে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। তবে অনেকে বলছেন, এর মধ্যে প্রশ্ন খোঁজা বৃথা। বিজেপি সাংগঠনিক এবং শৃঙ্খলাপরায়ন দল হিসেবে পরিচিত। বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপি চাইছে না এমন কোনো ঘটনা ঘটুক, যার পরিপ্রেক্ষিতে দল অস্বস্তিতে পড়ে। তাই সভাপতি হিসেবে দিলীপ ঘোষ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সমস্ত মন্তব্য করলেন।

ফলে এর পেছনে মুকুল রায়ের নীরবতা নিয়ে যে জল্পনা তৈরি হয়েছে, তা অত্যন্ত ভিত্তিহীন বলেই দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা। শুধুমাত্র সাংগঠনিক এবং শৃঙ্খলাপরায়নতার খাতিরে মুকুল রায় “দিলীপ ঘোষ যা বলার বলবেন” বলে জানিয়ে দিয়েছেন। সব মিলিয়ে কেন্দ্রীয়স্তরে রাজ্য বিজেপির আগামী বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে এই মহাবৈঠক আগামীদিনে কোন সমীকরণের সৃষ্টি করে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!