এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > ডানা ছাটা হচ্ছে অধীরের? প্রদেশ সভাপতি পদে বদল নিয়ে জল্পনা!

ডানা ছাটা হচ্ছে অধীরের? প্রদেশ সভাপতি পদে বদল নিয়ে জল্পনা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  বাংলায় এবার বিপুল ভরাডুবি হয়েছে কংগ্রেসের। 2016 সালে তারা বিরোধী আসন দখল করলেও, 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনে একজন প্রতিনিধিও রাজ্য বিধানসভায় পাঠাতে পারেনি হাত শিবির। শুধু তাই নয়, বামেদের সঙ্গে জোট করে লাভ যে তাদের কিছুই হয়নি, তা কার্যত পরিষ্কার। আর এই পরিস্থিতিতে বর্তমানে বিধানসভার ভেতরে এবং বাইরে প্রধান লড়াই হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে। সেদিক থেকে প্রাসঙ্গিকতা হারিয়ে ফেলতে শুরু করেছে হাত এবং কাস্তে-হাতুড়ি শিবির।

এদিকে ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই সংগঠনকে নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য সঠিকভাবে সময় দিতে পারবে, এমন কাউকে দায়িত্ব দেওয়া উচিত বলে দাবি করছেন দলীয় নেতৃত্বদের একাংশ। সেদিক থেকে অধীর রঞ্জন চৌধুরীর বদলে নতুন কাউকে প্রদেশ সভাপতি করা হতে পারে বলে জল্পনা তৈরি হয়েছে। যাকে কেন্দ্র করে সরগরম বিধান ভবন। ইতিমধ্যেই ফলাফল প্রকাশের পর একাধিক আলোচনা হয়েছে দলীয় স্তরে। ভবিষ্যতে কিভাবে চলা হবে, তা নিয়ে নেতৃত্বদের পরামর্শ চেয়েছেন সকলে। আর তার মাঝেই প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে প্রদেশ সভাপতি পদে অধীর চৌধুরীর থাকা এবং না থাকার জল্পনা।

একাংশ বলছেন, অধীর রঞ্জন চৌধুরী বাংলার সংগঠনে মাথা হলেও, তিনি ঠিকমত সময় দিতে পারেন না। কেননা সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে তাকে অনেকটা সময় দিতে হয়। তিনি শুধু বাংলার দায়িত্বে নেই, দলের লোকসভার দলনেতাও। সেদিক থেকে সর্বভারতীয় স্তরে তার একটা বড় দায়িত্ব রয়েছে। তাই এই সমস্ত কিছুকে সামাল দিয়ে রাজ্যে পড়ে থাকা সম্ভব নয় অধীর রঞ্জন চৌধুরীর। তাই এমন কাউকে বাংলার সংগঠনের দায়িত্ব দেওয়া উচিত যে, শুধুমাত্র বাংলার সংগঠনকে মজবুত করতে নজর দেবেন।

সেদিক থেকে অধীর রঞ্জন চৌধুরীর বদলে যদি অন্য কাউকে দলের দায়িত্ব দেওয়া হয়, তাহলে এখানে দল অনেকটাই সংগঠিত হতে পারে বলে মনে করছেন কংগ্রেসের একাংশ। যদিও এই ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। বলা বাহুল্য, প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি সোমেন মিত্র প্রয়াত হওয়ার পরেই লোকসভার দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে এই পদে বসায় কংগ্রেস হাইকমান্ড।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কট্টর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধী অধীর রঞ্জন চৌধুরী দলকে ভালো ফল করানোর জন্য সফল হবেন বলেই আশা করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সংযুক্ত মোর্চা নাম দিয়ে বৃহত্তর জোট গঠন করেও, তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়ানো তো দূরের কথা, বিরোধী ভোটব্যাঙ্কই ধরে রাখতে পারল না কংগ্রেস। যে জায়গা দখল করে নিল ভারতীয় জনতা পার্টি। আর এই পরিস্থিতিতে 24 ঘন্টা দলকে সময় দেওয়া ব্যক্তিকে প্রদেশ সভাপতি করার জোরদার দাবি উঠেছে দলীয় স্তরে।

তবে অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে যদি বর্তমান পরিস্থিতিতে সরিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে কে হবেন পরবর্তী সভাপতি, এখন সেটাই বড় প্রশ্নের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কেননা বর্তমান পরিস্থিতিতে কংগ্রেসের নেতৃত্ব দেওয়ার মত তেমন দাপুটে নেতা নেই বললেই চলে। তাই এখন যদি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর মত নেতাকে সরিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে হাত শিবির আরও সমস্যার মুখে পড়ে যেতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। অনেকে বলতে শুরু করেছেন, শুধুমাত্র সভাপতি পরিবর্তন করে কিছু হবে না।

দীর্ঘদিন ধরে কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ ত্রুটির কারণে ধীরে ধীরে তাদের সংগঠন ভাঙতে শুরু করেছে। তাই সেই সংগঠনের হাল ফেরাতে দলের রণনীতি ঠিক করা দরকার। তাই মাথা পরিবর্তন করে যদি সংগঠন ঠিক হয় বলে ভাবতে থাকেন নেতারা, তাহলে তা আরও ভুল হবে বলেই দাবি করছেন একাংশ। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, প্রদেশ সভাপতি বদল হয়, নাকি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর ওপরেই ভরসা রাখে কংগ্রেস হাইকমান্ড, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!