এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > এবার সাইবার অপরাধ নিয়েই বেজায় অস্বস্তিতে দ্বিতীয় ফেলুদা, জেনে নিন বিস্তারিত

এবার সাইবার অপরাধ নিয়েই বেজায় অস্বস্তিতে দ্বিতীয় ফেলুদা, জেনে নিন বিস্তারিত



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- বর্তমানের সোশ্যাল মিডিয়ার কোন কোন ক্ষেত্রে আপনার কতখানি যাতায়াত রয়েছে, ফেসবুক থেকে শুরু করে ইনস্টাগ্রাম, টুইটার এগুলোতে আপনার ফ্যান ফলোইং কত, সেটাই বর্তমানে আপনার স্মার্টনেস বা আনস্মার্টনেসের পরিচায়ক হিসেবে উঠে আসে বলেই মনে করেন বেশিরভাগ মানুষ। ফলত বাস্তব জীবনে আপনি যতই আনসোশ্যাল হোন না কেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় একাউন্ট নেই এমন মানুষের সংখ্যা অত্যন্ত কম।

সেক্ষেত্রে অনেকের মতে সোশ্যাল মিডিয়া সম্পর্কে অনেক প্রতারণার খবর আসে, যা থেকে দূরে থাকতেই অনেকে এই পথ বেছে নেন। আবার অনেকের মতে, ব্যস্ত জীবনে আলাদা করে ফ্যান ফলোইং বাড়ানোর সময় বিশেষ পান না অনেকেই। এগুলি থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখতেই তাই পছন্দ করেন অনেকে। তবে যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত যাতায়াত করেন তাদের কাছে ফেসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরি করে প্রতারণা করার ঘটনা শোনা বা দেখা নতুন কিছু নয়।

আর সেক্ষেত্রে যদি হয় কোন সেলিব্রিটি, তাহলে এই সম্ভাবনা আরও অনেক বেড়ে যায় বলেই মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। সম্প্রতি এমনই একটি সাইবার অপরাধের শিকার হতে দেখা গেছে সব্যসাচী চক্রবর্তীকে। বাংলায় সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের পরে যাকে মানুষ ফেলুদা হিসেবে চেনে সেই সব্যসাচী চক্রবর্তী ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখলেও তাঁরই নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে সেখানে তরুণীদের অশ্লীল ছবি পোস্ট করা নিয়ে বেজায় অস্বস্তিতে রয়েছেন অভিনেতা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শেষ পর্যন্ত তিনি পুলিশের দ্বারস্থ হতে বাধ্য হয়েছেন বলেও জানা গেছে। তাঁর কথায়, সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করা হয়েছে। আর ওই অ্যাকাউন্টে তরুণীদের অশ্লীল ছবি পোস্ট করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তবে ৩০শে অক্টোবর তাঁর প্রথম বিষয়টি নজরে আসে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে সেই সময় বিষয়টিকে বিশেষ পাত্তা না দিলেও পরে ১২ই নভেম্বর সব্যসাচী চক্রবর্তী লালবাজারের দ্বারস্থ হন বলে জানা গেছে। কলকাতা পুলিশকে অভিযোগপত্রের সঙ্গে ওই অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা অশ্লীল ছবি প্রমাণ হিসাবে তিনি দিয়েছেন বলেও জানা গেছে। তাঁর মতে, কেউ তাঁর ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করছে বলেই অভিযোগ করেছেন তিনি। সেই সঙ্গে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি তিনি স্ত্রী মিঠু চক্রবর্তীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও পোস্ট করতে দেখা গেছে তাঁকে।

ওই ভিডিওতে তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন যে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার কোথাও তাঁর কোনও অ্যাকাউন্ট নেই। তাঁর নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে অসৎ উদ্দেশ্যে অশ্লীল ছবি পোস্ট করা হচ্ছে। তাই তাঁর অনুরোধ, ফেসবুকে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে অসৎ উদ্দেশ্যে যারা এসব কাজ করছেন তা বন্ধ করুন। সেই সঙ্গে পুলিশ এই ঘটনার শীঘ্রই নিষ্পত্তি করবে বলেও আশা রেখেছেন তিনি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!