এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > “সিআরপিএফ যদি গন্ডগোল করে, মেয়েরা ঘেরাও করবে” দলীয় সভায় বিস্ফোরক মমতা!

“সিআরপিএফ যদি গন্ডগোল করে, মেয়েরা ঘেরাও করবে” দলীয় সভায় বিস্ফোরক মমতা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –নির্বাচনী প্রচার করতে গিয়ে এবার বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এতদিন নির্বাচন কমিশন সহ কেন্দ্রীয় বাহিনীকে প্রভাবিত করার অভিযোগ তুলতে দেখা গিয়েছিল তাকে। এমনকি তৃতীয় দফার নির্বাচনের দিন বেশ কিছু ক্ষেত্রে দলীয় প্রার্থীদের উপর আক্রমণ হলেও কেন্দ্রীয় বাহিনী কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না বলে অভিযোগ করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। শুধু তাই নয়, বেশ কিছু ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় বাহিনী ভোটারদের প্রভাবিত করছে এবং বিজেপির হয়ে কাজ করছে বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছিল।

আর এই পরিস্থিতিতে এবার কোচবিহারে দলীয় জনসভা থেকে সিআরপিএফ যদি গন্ডগোল করে তাহলে মেয়েরা তাদের ঘেরাও করে রাখবে বলে মন্তব্য করতে দেখা গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর ভোটের ময়দানে সিআরপিএফকে জব্দ করতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ধরনের টনিককে কেন্দ্র করে এখন নানা মহলে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। একজন প্রার্থী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর এই ধরনের মন্তব্য করা কি আদৌ সাজে, এখন তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে একাংশ।

সূত্রের খবর, আজ কোচবিহারে দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে একটি জনসভায় যোগ দেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানেই সিআরপিএফ তথা কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের বিরুদ্ধে মন্তব্য করতে দেখা যায় তাকে। তৃণমূল নেত্রী বলেন, “সিআরপিএফ যদি গন্ডগোল করে, মেয়েদের বলে দিচ্ছি, ওদের ঘেরাও করে রাখবেন এক দল, আর একদল ভোট দিতে যাবেন। একদল ঘেরাও করবেন, আর একদল ভোট দেবেন। ভোট নষ্ট করবেন না।”


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অর্থ্যাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, কেন্দ্রীয় বাহিনী অশান্তি করার চেষ্টা করছে। কিন্তু তাদেরকে রুখে দিয়ে মা বোনেদের এগিয়ে এসে ভোটদান প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে হবে। তবে তৃণমূল নেত্রী এই বক্তব্য দেওয়ার সাথে সাথেই তার নিয়ে রীতিমত চর্চা শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

পর্যবেক্ষকদের একাংশ বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে এতদিন ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ সহ একাধিক অভিযোগ করেছেন। কিন্তু এবার যেভাবে মহিলাদের এগিয়ে এসে সেই সিআরপিএফকে ঘেরাও করার কথা বললেন, তা নিঃসন্দেহে নজিরবিহীন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখনও পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ মন্ত্রী। সেক্ষেত্রে তিনি কিভাবে ভোট প্রক্রিয়া চলাকালীন এই ধরনের মন্তব্য করতে পারেন, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। ইতিমধ্যেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই বক্তব্যকে হাতিয়ার করেই ময়দানে নেমে পড়েছে বিরোধীরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!