এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > এতদিন সিপিএমের দখলে থাকায় গঙ্গাজল দিয়ে শুদ্ধ করে প্রধানের চেয়ারে বসলেন তৃনমূলী নেতা

এতদিন সিপিএমের দখলে থাকায় গঙ্গাজল দিয়ে শুদ্ধ করে প্রধানের চেয়ারে বসলেন তৃনমূলী নেতা



আগে বাড়িতে অশুভ জিনিস এলে গঙ্গা জল দিয়ে সেই জায়গাকে শুদ্ধ করতেন মা ঠাকুমারা। এবার সেই প্রাচীন রীতিতে বিশ্বাস রেখে সিপিএম বোর্ড দখল করে সেই চেয়ারে গঙ্গা জল ছিটিয়ে শুদ্ধ করলেন তৃনমূল নেতারা। বাঁকুড়া 2 ব্লকের বিকনা গ্রাম পঞ্চায়েতের এহেন ঘটনায় এদিন চরম চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, 15 আসনবিশিষ্ট এই পঞ্চায়েতে গতবার সিপিএম বোর্ড গঠন করলেও এবারে আর তা হয়নি। 15 টির মধ্যে 10 টিতে আগেই বিনা প্রতিন্দ্বন্দ্বীতায় জয়লাভ করে শাসকদল এবং যে পাঁচটিতে নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল তার মধ্যে 3 টিতে তৃনমূল এবং বিজেপি দুটি আসন পায়। দুর্ভাগ্যবশত এবারে এখানে খাতাই খুলতে পারেনি বামেরা।

বৃহস্পতিবার এই বাঁকুড়া জেলার এই পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনে প্রধান পদে তৃনমূলের কার্তিকচন্দ্র মাল এবং উপপ্রধান পদে সেই তৃনমূলেরই গোপাল চট্টোপাধ্যায় নির্বাচিত হন। আর এরপরই বামেদের রেখে যাওয়া চেয়ারে বসার আগে গোটা পঞ্চায়েত অফিস গঙ্গাজল দিয়ে শুদ্ধ করেন তৃনমূল সদস্যরা? কিন্তু এই শুদ্ধিকরন কেন? এদিন সেই প্রসঙ্গে এই পঞ্চায়েতের নবনির্বাচিত প্রধান কার্তিকচন্দ্র মাল বলেন, “লালপার্টির দুর্নীতির জেরে এই পঞ্চায়েত ভবন কলুষিত হয়েছে। তাই এদিন সেই সব শুদ্ধ করতে টেবিল, চেয়ারে গঙ্গাজল ঢালা হয়েছে।”

তাহলে কি সত্যিই বিগত দিনে এই পঞ্চায়েতে দুর্নীতির আমদানি করেছিল বামেরা? এই প্রশ্নের উত্তরে বাঁকুড়া জেলা সিপিএমের কমিটির সদস্য প্রতীপ মুখোপাধ্যায় বলেন, “2013 সালে এই পঞ্চায়েত দখল করলেও আমাদের দলের প্রধানকে দিয়ে তৃনমূলই বিভিন্ন দুর্নীতির কাজ করিয়েছে। তাই এর জন্য ওরাই দায়ী।” এদিকে একদিকে যখন পঞ্চায়েত অফিস শুদ্ধিকরন নিয়ে তৃনমূল বনাম সিপিএমের মধ্যে চলছে জোর তরজা ঠিক তখনই সেই বাঁকুড়াতে 21 টি পঞ্চায়েতের মধ্যে 1 টি পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন না হওয়ায় প্রশাসন এবং শাসকদল তৃনমূলের প্রতি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করল বিজেপি। জানা গেছে, সিমলাপালের বিক্রমপুর নামে একটি পঞ্চায়েতে আইনশৃঙ্খলা অবনতির কারন দেখিয়ে বোর্ড গঠন স্থগিত করে দেয় প্রশাসন বলে জানান জেলাশাসক উমাশঙ্কর এস এবং পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও।

এদিকে এই বিক্রমপুর বোর্ড গঠন স্থগিত করায় তৃনমূলকে কটাক্ষ করে বিজেপির বাঁকুড়া জেলা সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্র বলেন, “বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে এমন পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনে বাধা দিচ্ছে শাসকদল। আসলে বিজেপিকে ভয় পেয়ে তৃনমূল এখন প্রশাসনের সাহায্য নিয়ে বোর্ড গঠন স্থগিত করে দিচ্ছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অপরদিকে বিজেপির এই অভিযোগ খারিজ করে জেলা তৃনমূলের সভাপতি অরুপ খাঁ বলেন, “তৃনমূল শৃঙ্খলাপরায়ন দল। এসব অভিযোগ করে বিজেপি বাজার গরম করতে চাইছে। আমাদের দলের কর্মীদের নিয়ে ওদের চিন্তা করতে হবে।” তবে জেলা তৃনমূলের সভাপতি চিন্তা করতে বারন করলেও বাঁকুড়া বিকনা পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করে তৃনমূল সদস্যরা চেয়ার টেবিলে গঙ্গাজল ছিটিয়ে সিপিএমের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনায় বাম নেতাদের কপালে চিন্তার ভাঁজ আরও চওড়া হচ্ছে বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!