এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তিন বিস্ফোরক অভিযোগে শাসকদলের ঘুম ওড়াতে আদালতের পথে রাজ্য বিজেপি

তিন বিস্ফোরক অভিযোগে শাসকদলের ঘুম ওড়াতে আদালতের পথে রাজ্য বিজেপি



রাজ্যে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের নিরাপত্তা বিষয়ে সন্দীহান হয়ে আবার আদালতের দারস্থ হতে চলেছে রাজ্যের গেরুয়া শিবির। শনিবার দলের কোর কমিটির বৈঠকে আগামী সোমবার আদালতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মূলতঃ তিনটি দাবি নিয়ে আদালতে যেতে চলেছে বিজেপি নেতৃত্ব।তাঁদের ধারণা এই তিনটি বিষয়ই রাজ্যের শাসকদলকে অস্বস্তিকর অবস্থায় নিয়ে যাওয়ার জন্যে যথেষ্ট।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

১. বিজেপির দাবি অনুসারে, ২০১৩ সালে ৫ দফা নির্বাচনে কেন্দ্রীয়বাহিনী এসেছিলো রাজ্যে। এবার সেখানে একদফা নির্বাচনের কথা ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। বিজেপির মূল কথা হলো রাজ্য জুড়ে মোট নির্বাচনী বুথের সংখ্যা ৫৮,৪৭৬টি। সেখানে রাজ্যের মোট পুলিশ কর্মীর সংখ্যা ৫৮,০০০। এরমধ্যে আবার সশস্ত্র পুলিশের সংখ্যা ৪৬,০০০।আর লাঠিধারী ১২,০০০ এই পরিস্থিতিতে একা রাজ্য পুলিশের পক্ষে কীভাবে গোটা নির্বাচন প্রক্রিয়ার নিরাপত্তা এবং শান্তি শৃঙ্খলার বিষয়ে তদারকি করা সম্ভব, সেই বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি।
২. যদিও নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে আশ্বাস পেয়েই একদফায় নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখানেও বিরোধীতা করে বিজেপি জানাচ্ছে হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে সব রাজনৈতিক দলের সাথে বৈঠক করে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয়নি নির্বাচন কমিশন। আদালতের নির্দেশ অমান্য করা আদালত অবমাননার সমতুল্য।
৩. শুধু এইগুলিই নয় এছাড়াও আরেকটি বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি । তাদের দাবি প্রতিবার সরকারি সংস্থা পঞ্চায়েত নির্বাচনে ব্যালট পেপার ছাপানোর দায়িত্ব পায়। কিন্তু এবার সেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বেসরকারি সংস্থাকে। আর ঐ সংস্থাগুলির সাথে যুক্ত রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস দলের নেতা ও কর্মীরা। এইভাবে কী আদৌ নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছ নির্বাচন প্রক্রিয়া পরিচালনা করা সম্ভব। এইসব উল্লেখযোগ্য আর্জি ও অভিযোগ নিয়ে আদালতের দারস্থ হতে চলেছে বিজেপি। তাই পঞ্চায়েত নির্বাচনের নির্ধারিত দিন নির্বাচন প্রক্রিয়ার জন্যে এখনই কতখানি সম্ভাব্য সেই বিষয়ে বলা মুশকিল!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!