এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > করোনার পাশাপাশি অজানা রোগে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা, নতুন করে এই রাজ্যে ছড়াচ্ছে আতঙ্ক !

করোনার পাশাপাশি অজানা রোগে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা, নতুন করে এই রাজ্যে ছড়াচ্ছে আতঙ্ক !



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একে করোনা নিয়ে আতঙ্কের শেষ নেই, তার মধ্যে এবার নতুন রোগের হানা। সম্প্রতি অন্ধপ্রদেশে দেখা যায়, বেশ কিছু মানুষ হঠাৎ করেই খিচুনি রোগের আক্রান্ত হয়েছেন হাসপাতালে নিয়ে আসা মাত্রই বেশ কয়েক জন মারা যান। এদিকে ডাক্তাররাও কেন এরকম হল তার কোনরকম দিশা পাচ্ছিলেন না। পাশাপাশি অন্ধপ্রদেশের ইলুরু শহরের মানুষের আতঙ্ক বেড়েই চলছিল ক্রমশ। এই অবস্থায় দিল্লি থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের দল এসে আসল কারণ খুঁজে বার করে। জানা গিয়েছে, অন্ধপ্রদেশের ইলুরু শহরের অজানা রোগে আক্রান্ত রোগীদের দেহে প্রচুর সিসা এবং নিকেল পাওয়া গেছে। এই ভারী ধাতুই অসুস্থতার পেছনের মূল কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা যাচ্ছে, রোগীদের রক্তের নমুনা দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সাইন্সেসে পরীক্ষা হয়েছে। অন্ধ্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সাইন্সেসের পরিচালকের সঙ্গে কথা বলেছেন। এ বিষয়ে এইমসের বিশেষজ্ঞরা অন্ধ্রের চিকিৎসকদের সঙ্গে এবং সরকারি দলের সঙ্গে সর্বক্ষণ যোগাযোগ রাখছেন বলে জানা গেছে। অন্যদিকে অন্ধপ্রদেশের সরকারি সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, গতকাল থেকে কম করেও 500 জন অজানা রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যদিও বিপদসীমার বাইরে এই মুহূর্তে 370 জন। তবে অবস্থা গুরুতর বেশ কয়েকজনের।

শহরের সরকারি জেনারেল হাসপাতালে রবিবার রাতে একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ডাক্তারদের সূত্রে খবর, রোগী অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলেন। তার সাথে মাথার যন্ত্রণা এবং বমি ভাব ছিল। পাশাপাশি মৃগী রোগের উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। কিন্তু কি কারণে এত কিছু হল, তার খোঁজ পেতে না পেতেই মৃত্যু হয় রোগীর। মৃত রোগীর সেরিব্রাল স্পাইনাল ফ্লুইড টেস্ট করানো হয়। কিন্তু তাতেও করোনা সংক্রমণ ছিলনা। অনেকেই দাবি করতে থাকেন, কৃষিক্ষেত্রে ব্যবহৃত রাসায়নিকের কারণে হয়তো খাবারের মাধ্যমে অজানা কোনো সংক্রমণ ছড়িয়েছে এলাকাবাসীর দেহে। 


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অসুস্থ রোগীদের মধ্যে অনেকেই আবার এলাকায় ময়লা জমা এবং শুয়োর ঘুরে বেড়ানোর কথা বলেছেন। ডাক্তারদের ভাষায় বিষাক্ত অর্গানোক্লোরিনের মত টক্সিন পদার্থ শরীরে ঢুকলে এধরনের খিঁচুনি বা স্নায়ু রোগ দেখা দিতে পারে। কিন্তু সব বুঝেও যখন কোনো দিশা পাচ্ছিলেন না অন্ধ্রের ডাক্তাররা, সেসময় দিল্লি থেকে বিশেষ টিম পৌঁছায়। তাঁরা আক্রান্তদের বাড়ি থেকে ভোজ্যতেল ও চালের দানা ইত্যাদি সংগ্রহ করে নিয়ে যান ল্যাবরেটরীতে পরীক্ষাগারে। অন্যদিকে রোগীদের মূত্র এবং রক্ত পরীক্ষার সমস্ত রিপোর্ট দেখা হয়। নমুনা দিল্লিতেও যায়।

শেষমেশ দিল্লি থেকে জানানো হয়, রক্তে অতিরিক্ত সিসা ও নিকেল থাকার কারণে বিষক্রিয়া ঘটছে। অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি সরকারি হাসপাতালে রোগীদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই দেখা করেছেন। আক্রান্তরা সর্বোচ্চ পরিষেবা পাবেন বলে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে পূর্ব গোদাবরীর ইলুরু শহরে 24 ঘন্টার কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। রাজ্যের মুখ্য সচিব জানিয়েছেন, সমস্ত রকম জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে বিজয়ওয়াড়া হাসপাতালগুলিতে অতিরিক্ত শয্যার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অন্যদিকে করোনা নিয়ে এখনো পর্যন্ত খুব একটা ভালো অবস্থায় নেই অন্ধপ্রদেশ। তার মধ্যেই নতুন করে অজানা রোগ আতঙ্ক ছড়িয়েছে ইলুরুবাসীর মধ্যে। চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞরা প্রশ্ন তুলেছেন, আক্রান্তদের রক্তে এত পরিমাণ সিসা এবং নিকেল কি করে এলো? এত ভারী ধাতু কোন সুস্থ মানুষের শরীরে দেখা যায় না। আপাতত এই নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সুস্থ করে তোলার চেষ্টা করা হচ্ছে আক্রান্তদের। পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!