এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > করোনা পজিটিভ ও নেগেটিভের হাতাহাতিতে রাজ্য প্রশাসনের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ

করোনা পজিটিভ ও নেগেটিভের হাতাহাতিতে রাজ্য প্রশাসনের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি যে এই মুহূর্তে মারাত্মক তীব্র আকার ধারণ করেছে, তা নিয়ে সন্দেহ নেই কারোর। করোনার এই বাড়বাড়ন্তকে লাগাম দিতে বাংলায় ফের একবার লকডাউন ফিরে আসছে রাজ্য সরকারের হাত ধরে। আপাতত রাজ্যের করোনা পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য রীতিমত মরিয়া হয়ে উঠেছে রাজ্য প্রশাসন বলে মনে করা হচ্ছে। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় দেখা যাচ্ছে, করোনা মারাত্মক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। রেকর্ড সংখ্যায় সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা।

কিন্তু করোনার এই আবহে এবার সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল করোনা নেগেটিভ এবং পজেটিভের দল। এমনিতেই করোনা সংক্রামিত রোগ। এই অবস্থায় নেগেটিভ এবং পজেটিভ এর মধ্যে হাতাহাতি হওয়ায় রাজ্য প্রশাসনের চিন্তা যে দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি পেল, তা নিয়ে নিঃসন্দেহ বিশেষজ্ঞরা। ঘটনাটি ঘটেছে 18 নম্বর দমদম রোডের বস্তি এলাকায়। সূত্রের খবর, এই বস্তি এলাকায় সম্প্রতি করোনা পজিটিভ এবং নেগেটিভদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ হয়। আহত হয় বেশ কয়েকজন। তাঁদের উদ্ধার করে আরজিকর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

ঘটনার সূত্রপাত বুধবার সকালে। এদিন 18 নম্বর দমদম রোডের বস্তিতে সকাল থেকেই গন্ডগোল শুরু হয়। স্থানীয় সূত্রের জানা গেছে, সম্প্রতি এলাকার একজনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এলাকাবাসীর দাবি, পজিটিভ রুগী এবং তাঁর পরিবার কোনো নিয়ম-কানুনের তোয়াক্কা করছিলনা। সেই অভিযোগ করতেই শুরু হয় তুমুল গন্ডগোল। এরপরে বস্তিবাসীরা দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায় এবং দুই পক্ষের শুরু হয় তুমুল হাতাহাতি। ঘটনায় দুই পক্ষেরই 6 জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী উপস্থিত হয় বলে জানা গেছে। আপাতত আহতদের আরজিকর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে বলে খবর। তবে এলাকা এখনও থমথমে বলে জানা যাচ্ছে। পুলিশ এই মুহূর্তে ঘটনার তদন্তে নেমেছে বলে খবর। তবে এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি বলে জানা গেছে। অন্যদিকে এই ঘটনা যে রাজ্য প্রশাসনের চিন্তা আরো বাড়িয়ে তুলল, তা নিয়ে আর সন্দেহের অবকাশ নেই বলেই মত সবার।

একেই করণা পজিটিভের বাড়বাড়ন্তের ঠেলায় রাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগের নাভিশ্বাস উঠছে। সেখানে পজিটিভ এবং নেগেটিভের মারামারির ফলে আগামী দিনে যে আরও কতজন্করোনা পজেটিভ হবেন, তা নিয়ে রীতিমত প্রমাদ গুনছে রাজ্যের স্বাস্থ্য মহল। তবে বিশেষজ্ঞদের মত, এই ঘটনা কিছু সাধারন মানুষের নির্বুদ্ধিতাই প্রমাণ করে। আগামী দিনে এই করোনা পজিটিভ এবং নেগেটিভের হাতাহাতিতে আরও কতজন করোনা অপজিটিভ বেরিয়ে আসে এখন সেদিকেই নজর রাজ্যের স্বাস্থ্যবিভাগের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!