এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পরিচারক আক্রান্ত জেনেও কেন ঘুরে বেড়ালেন? প্রশ্নের মুখে মন্ত্রী সুজিত থেকে মমতা স্বয়ং!

পরিচারক আক্রান্ত জেনেও কেন ঘুরে বেড়ালেন? প্রশ্নের মুখে মন্ত্রী সুজিত থেকে মমতা স্বয়ং!



করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে রক্ষা পাননি রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী সুজিত বসু। নিঃসন্দেহে এই ভাইরাস কাকে কখন আক্রমণ করবে, তা কেউ বলতে পারবে না। কিন্তু প্রত্যেককেই সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এবার রাজ্যের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর তার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করল।

জানা গেছে, প্রায় চার দিন আগে রাজ্যের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসুর বাড়ির এক পরিচারক আক্রান্ত হন। নিয়ম অনুযায়ী কেউ যদি করোনায় আক্রান্ত হন, তাহলে তার পরিবারের অন্যান্য লোকজনদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হয়। কিন্তু এই সমস্ত নিয়মকে উপেক্ষা করে নিজের বাড়ির পরিচারকের আক্রান্ত হওয়ার পরেও গত বুধবার বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে একজন মন্ত্রীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসু।

ফলে তিনি এখন আক্রান্ত হয়ে যাওয়ায় নানা অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়া সুজিতবাবুর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের শরীরেও করোনা ভাইরাস বাসা বাধতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কেন সবকিছু জানার পরেও বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়ালেন সুজিত বসু? কেন তিনি এবং তার পরিবারের সদস্যরা কোয়ারেন্টাইনে থাকলেন না?

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্যের দমকল মন্ত্রী বলেন, “দিন চারেক আগে আমার বাড়ির পরিচারকের করোনা ধরা পড়ে। আমি খুবই সতর্ক এই সমস্ত ব্যাপারে। বৃহস্পতিবারই আমরা করোনা পরীক্ষা করাই। সন্ধ্যায় আমার এবং আমার স্ত্রীর রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আমার পুত্র এবং কন্যার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।” তবে যেখানে সরকারি নির্দেশ রয়েছে যে, কারও বাড়ির কেউ করোনা আক্রান্ত হলে তিনি এবং তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা কোয়ারেন্টাইন থাকবেন, সেখানে কেন এভাবে মানুষের সঙ্গে মিশে গেলেন সুজিত বসু?

এতে তো শুধু তিনি করোনা আক্রান্ত হলেন তাই নয়, যাদের সংস্পর্শে তিনি এসেছেন, তাদেরও আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে! এদিন এই প্রসঙ্গে নবান্নের সাংবাদিক বৈঠক থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “যে কোনো মানুষেরই হতে পারে। দুর্যোগের মধ্যে কাজ করতে গিয়ে সুজিতের করোনা হয়েছে। আমার এলাকাও তো করোনা কবলিত। আমি কি করব? আপনারা কি চান আমি বাড়িতে চুপ করে বসে থাকব! নিজেকে হোম কোয়ারেন্টাইন করে নেব! তাহলে তো কাজ হবে না। ববিরও শরীর খারাপ। সব সময় বলি সাবধানে থাকতে। কেউ ক্যারিয়ার হলে কি করতে পারি!”

তবে মুখ্যমন্ত্রী এই কথা বললেও, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিচারক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর রাজ্যের দমকল মন্ত্রীর কিছুটা হলেও সচেতন হওয়া উচিত ছিল। সামাজিক দূরত্ব অবলম্বন করে নিজেকে কোয়ারেন্টাইন রেখে দেওয়া উচিত ছিল সুজিত বসুর। কিন্তু তা না করে যেভাবে তিনি নানা অনুষ্ঠানে মানুষের সঙ্গে মিশেছেন, তাতে এখন তার সংস্পর্শে আসা নানা সরকারি কর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষদের এই ভাইরাস কতটা গ্রাস করে, তার দিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!