এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > করোনা আবহে বড়সড় স্বস্তি দিয়ে বিশাল বড় ঘোষণা অ্যামাজনের, পুরোটা জানলে চমকে যাবেন আপনিও

করোনা আবহে বড়সড় স্বস্তি দিয়ে বিশাল বড় ঘোষণা অ্যামাজনের, পুরোটা জানলে চমকে যাবেন আপনিও



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনে যে সমস্ত মানুষেরা কর্মে যোগ দিয়েছেন তাদের কর্মপ্রণালী চলেছে অনলাইন পরিষেবার মাধ্যমেই। বস্তুত work-from-home করে তারা চালিয়ে গেছেন তাদের প্রতিনিয়ত কর্মকাণ্ডকে। তবে সেই সুযোগ আনলক প্রক্রিয়ায় হারিয়েছেন বহু মানুষ। কারণ সেক্ষেত্রে বাড়ি বসে কাজ করার মেয়াদ খুইয়েছেন অনেকেই। কাজেই পরিবহন পরিষেবা ঠিকঠাক না চললেও কাজের পথে পা রাখতে হয়েছে মানুষকে।

তবে এমন পরিস্থিতিতে সম্প্রতি নিজেদের সংস্থার কর্মীদের জন্য বাড়ি বসে কাজের সময়সীমা বাড়াতে শোনা গেছে একটি সংস্থাকে। যা নিয়ে সংস্থার কর্মীরা খুশি হয়েছেন বলে জানা গেছে। কথা হচ্ছে, ভারতের অন্যতম অনলাইন শপিং মাধ্যম আমাজনের। বিশ্বের অনলাইন খুচরো বিক্রেতা হিসেবে এরা পরিচিত।

এক্ষেত্রে শপিং করার ক্ষেত্রে তা গ্রাহক বাড়ি বসে অনলাইনে করলেও আপনার কাছে সেই পরিসেবা পৌঁছে দেবার জন্য লকডাউনের মধ্যেও অসংখ্য আমাজনের কর্মচারী নিজেদের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে গেছে। সেইসঙ্গে গোডাউন রক্ষনাবেক্ষণ থেকে শুরু করে প্যাকেজিং থেকে শুরু করে সমস্ত দায়িত্ব পালন করেছেন যথাযথভাবে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তবে কিছুদিন ধরে আমাজনের কর্মীদের মধ্যে স্বাস্থ্যঝুঁকি সম্পর্কিত প্রতিবাদ নিয়ে সরব হতে দেখা গিয়েছিল কিছু জনকে। যার ফলেই work-from-home এর মেয়াদ বাড়ানোর কথা ভাবনা চিন্তা করেছে আমাজন সংস্থা, এমনটাই মনে করা হচ্ছে। জানা গেছে যেখানে work-from-home এর সময়সীমা ছিল ২০২১ সালের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত, সেখানে সেই সময়সীমা বাড়িয়ে ৩০শে জুন ২০২১ করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

গতকাল সংস্থার তরফে ইমেইলের মাধ্যমে সমস্ত কর্মচারীকে এই তথ্য জানানো হয়েছে বলে জানা গেছে। সম্প্রতি আমেরিকায় চলতি বছরে তাদের ১৯০০০ কর্মী করণাতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গিয়েছিল। যার জেরে অ্যামাজনের কর্মীরা অফিসে যেতে চান না বলেই জানিয়েছিলেন।

তাই তাদের ক্ষেত্রে তারা যদি বাড়িতে বসে সুষ্ঠুভাবে কাজ চালিয়ে যেতে পারেন তবে তাদের সামনের বছর জুন মাস পর্যন্ত সেরকম ভাবে কাজ করতে কোনো বাধা নেই বলেই জানানো হয়েছে সংস্থার তরফে। সেইসঙ্গে যে সমস্ত মানুষ অফিসে যেতে চান তাদের ক্ষেত্রেও বাধা দেয়নি আমাজন। তাই তাদের জন্য নতুন ব্যবস্থা করার কথাও ঘোষনা করেছেন তারা।

তাই সংস্থার তরফে, যারা অফিসে আসতে চান, তারা যাতে কর্মসংস্থানে আসার পরে সমস্ত রকম করোনা সংক্রান্ত ঝুঁকি থেকে বিরত থাকেন, সেই দিকেও দেখতে দেখা গেছে সংস্থাকে। সেক্ষেত্রে পর্যাপ্ত পরিমাণ স্যানিটাইজার, মাস্ক, তাপমাত্রা পরিমাপ করার যন্ত্র সহ একাধিক নিরাপত্তা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া অফিসে বসে কাজ করার ক্ষেত্রেও বদ্ধ পরিবেশে যেহেতু করোনা সংক্রমনের কোনো রকম পরিবেশ সৃষ্টি না হয়, সেদিকেও সংস্থার তরফে নজর রাখা হবে বলেও জানানো হয়েছে সংস্থার তরফে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!