এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > করোনা নিয়ে আশ্বস্ত করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, টিকার দামের বৈষম্য নিয়ে তুললেন প্রশ্ন

করোনা নিয়ে আশ্বস্ত করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, টিকার দামের বৈষম্য নিয়ে তুললেন প্রশ্ন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সারাদেশে শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় অধ্যায়। বাংলাও করোনার দ্বিতীয় অধ্যায়ের একটি অংশ হয়ে উঠেছে ক্রমেই। রাজ্যে প্রতিদিনই রেকর্ড হারে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এদিকে রাজ্যে চলছে বিধানসভার নির্বাচনী লড়াই। এই পরিস্থিতিতে করোনাকে আটকানো অন্যতম চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে বর্তমান রাজ্য সরকারের কাছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আজকে করোনার পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন। এই সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, আগামী 1 লা মে থেকে নয়, বরং আগামী 5 ই মে থেকে 18 বছরের উর্ধ্বে যারা তাঁরা করোনার প্রতিষেধক গ্রহণ করতে পারবেন।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকার থেকে সম্প্রতি জানানো হয়েছে 18 বছর বা তার বেশি বয়সিরা আগামী 1 লা মে থেকে করোনার ভ্যাকসিন নিতে পারবেন। একইসাথে কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্য সরকারগুলিকে সরাসরি করোনার ভ্যাকসিন কেনার ছাড়পত্র দিয়েছে। কিন্তু এই নিয়েই মুখ্যমন্ত্রী এদিন ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

কারণ সেরাম ইনস্টিটিউট আজকে জানিয়েছে, তাঁরা রাজ্য সরকারকে যে দামে ভ্যাকসিন দেবে কেন্দ্রীয় সরকারকে তার থেকে অনেক কমে ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে। আর এই দামের বৈষম্য নিয়ে তৃণমূল নেত্রী ব্যাপক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাংবাদিক বৈঠকে। তিনি দামের এই বৈষম্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় সরকারকে যেখানে দেড়শ টাকায় সেরাম ইনস্টিটিউট ভ্যাকসিন দেবে সেখানে রাজ্য সরকারকে 400 টাকায় ভ্যাকসিন দেবে বলে আজ ঘোষণা করেছে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই নিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীকে একটি চিঠি লিখেছেন। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানান, রাজ্যের মানুষকে এখনো পর্যন্ত 93 লক্ষ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এবং রাজ্য সরকার আরও এক কোটি ডোজ করোনার প্রতিষেধক কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনো পর্যন্ত কেন্দ্র রাজ্যকে এক কোটির বেশি করোনার প্রতিষেধক পাঠিয়েছে। তার মধ্যে থেকে ইতিমধ্যেই 93 লক্ষ ডোজ দেওয়া হয়ে গিয়েছে। 5 ই মের আগে আরো কম করে দশ লক্ষ মানুষের টিকাকরণ হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

অন্যদিকে সাংবাদিক বৈঠকে এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, আগামী দিনে রাজ্য সরকার 100 কোটি টাকার একটি ভ্যাকসিন ফান্ড তৈরি করবে। পাশাপাশি করোনার ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও সংক্রমণ নতুন করে কেন হচ্ছে, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, বাংলাতেও অন্যান্য রাজ্যের মত অক্সিজেনের সংকট দেখা দিয়েছে।

তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবরকমভাবে চেষ্টা করা হচ্ছে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, অযথা আতঙ্ক ছড়ানোর বা ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। পাশাপাশি তিনি আশ্বাস দিয়েছেন, এখনো পর্যন্ত বাংলার পরিস্থিতি অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় ঠিক আছে তাই আতঙ্কিত হবার কিছু নেই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!