এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > করোনা কালে কাজ হারানোদের পঞ্চায়েতস্তরে কাজ দেওয়ার ব্যবস্থা করতে চান মমতার হেভিওয়েট মন্ত্রী

করোনা কালে কাজ হারানোদের পঞ্চায়েতস্তরে কাজ দেওয়ার ব্যবস্থা করতে চান মমতার হেভিওয়েট মন্ত্রী



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনায় কাজ হারিয়ে বিপর্যস্ত বহু মানুষ। রাজ্যের করোনা সংক্রমণ মোকাবিলা করতে আংশিক লকডাউন জারি করা হয়েছে, এ কারণে দোকান, বাজারের সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে। যার ফলে রুজি রোজগার হারিয়ে বিপদে পড়েছেন বহু মানুষ। এদিকে দেশের বহু রাজ্যে করোনা সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ায়, ভিন রাজ্যে কাজ করতে যাওয়া পরিযায়ী শ্রমিকেরা ঘরে ফিরে আসতে বাধ্য হয়েছেন। হাতে কোন কাজ না থাকায় সংসার চালানোই কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই অবস্থায় কর্মহারা রাজ্যবাসীদের কর্মসংস্থানের বিশেষ উদ্যোগ নিল রাজ্য সরকার।

রাজ্যের কর্ম হারা মানুষের কর্মসংস্থানের বিশেষ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, করোনা সংক্রমনের ফলে রাজ্যের গ্রামীণ এলাকার বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন। অন্যান্য রাজ্যে কাজ করতে যাওয়া পরিযায়ী শ্রমিকেরা বাড়ি ফিরে আসতে বাধ্য হয়েছেন। যাদের অনেকেরই কোন জীবিকা নেই। এই অবস্থায় কোন মানুষ যাতে দীর্ঘ সময় কর্মহারা না থাকেন, সে বিষয়টিতে লক্ষ্য রাখতে চাইছে রাজ্য সরকার। জীবিকা হারা রাজ্যবাসীকে গ্রামীণ এলাকায় বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পে অন্তর্ভক্ত করার পরিকল্পনা করেছে রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তরের।

পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, রাজ্যের সমস্ত পঞ্চায়েতের আওতাভুক্ত এলাকায় পথঘাট নির্মাণ, রাস্তা সংস্কার, বিভিন্ন আবাস যোজনা সহ একাধিক প্রকল্পের কাজ রয়েছে। এই সমস্ত কাজ যাতে দ্রুত চালু করা যায়, তার ব্যবস্থা করা হবে। পঞ্চায়েতের আধিকারিকদের কাজ হবে, কাজ খুঁজে এনে কর্মহারা মানুষদের দ্রুত কাজে নিয়োগ করা। যার দ্বারা গ্রামবাংলার মানুষেরা বিকল্প জীবিকা খুঁজে পাবেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

পঞ্চায়েত মন্ত্রী জানিয়েছেন, চলতি আর্থিক বছরের দেড় মাস হয়ে গেলেও কেন্দ্রের পক্ষ থেকে ১০০ দিনের কাজের জন্য কোন অর্থ বরাদ্দ করা হয়নি। কিন্তু এই টাকা যদি কেন্দ্র না পাঠায়, তবে রাজ্য সমস্যায় পড়বে। ১০০ দিনের কাজের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে উপযুক্ত পরিমাণে অর্থ সাহায্য দাবি করে চিঠি দেয়া হয়েছে। পঞ্চায়েত মন্ত্রী জানিয়েছেন, গত বছর ১০০ দিনের কাজে রেকর্ড সংখ্যক শ্রমদিবস তৈরি করা সম্ভব হয়েছিল। গত বছর ৪১ কোটি ২৫ লক্ষ শ্রমদিবস রাজ্যে তৈরি করা হয়েছিল।

এবছরও ১০০ দিনের কাজের মাধ্যমে মানুষের জীবিকা নির্বাহের বন্দোবস্ত করে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার। ১০০ দিনের কাজে ২২ কোটি টাকা আনুমানিক বরাদ্দের সম্ভাবনা রয়েছে। পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, পঞ্চায়েত স্তরে জীবিকার একটা বিরাট সুযোগ আছে। মানুষ যখন জীবিকা হারা তখন এই সুযোগের ব্যবহার করে যাতে মানুষের বিকল্প রোজগারের ব্যবস্থা করা যায়, সেদিকে লক্ষ্য রাখবে পঞ্চায়েত।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা জানাচ্ছেন, করোনা সংক্রমণ কালে যখন রাজ্য তথা দেশজুড়ে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন বহু মানুষ, সংসার চালাতে যখন হিমশিম খাচ্ছেন বহু মানুষ। কাজ হারিয়ে বহু মানুষ যখন ঘরে বসে থাকতে বাধ্য হয়েছেন। সে সময়ে পঞ্চায়েত মন্ত্রীর এই উদ্যোগ যথেষ্ট প্রশংসনীয়। এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত হলে বহু রাজ্যবাসীর জীবিকার পথ সুগম হবে। করোনা সংক্রমণকালে রাজ্যবাসীর আয়ের এক বড়সড় পথ খুলে যাবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!