এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > করোনার মাঝেই ঘুম উড়িয়ে নতুন আতঙ্ক বাংলার বুকে! মুর্শিদাবাদে একযোগে আক্রান্ত ৭! বাড়ছে চিন্তা

করোনার মাঝেই ঘুম উড়িয়ে নতুন আতঙ্ক বাংলার বুকে! মুর্শিদাবাদে একযোগে আক্রান্ত ৭! বাড়ছে চিন্তা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় হিমশিম খাচ্ছে গোটা বিশ্ব। সেই সঙ্গে এসে গেলো আতঙ্কের আরও এক নাম স্ক্রাব টাইফাস। অনেকেই এটিকে ছোটোদের অসুখ বলে মনে করলেও বর্তমানে বড়রাও এই অসুখে দিব্যি কাবু হচ্ছে। সম্প্রতি মুর্শিদাবাদে এতে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ জন। এদের মধ্যে ৫ জনই শিশু। কি এই রোগ?

স্ক্রাব টাইফাস:- ইঁদুর,গবাদি পশু, কুকুর, বিড়াল এদের শরীরে সাধারণত থাকে ট্রম্বিকুইল মাইট নামের এই অসুখের জীবাণু। তবে ওইসব পশুর শরীরে বিশেষ সমস্যা না হলেও মানুষ এতে সহজেই আক্রান্ত হয়ে পড়ে। এই পোকার কামড়ানোর মাধ্যমে দেহে রোগ ছড়িয়ে পড়ে। পোকার কামড়ের জায়গায় ফোসকার মত দাগ দেখা যায়।

উপসর্গ:- রোগের উপসর্গ হিসেবে প্রথমে জ্বর এলেও এর সঙ্গে ক্লান্তি ভাব, ঠোঁট লাল হয়ে যাওয়া, পা ফুলে যাওয়ার মতো উপসর্গ দেখা যায়। এছাড়াও হতে পারে বমি ও গায়ে ব্যাথা। চোখের পিছনে অসহ্য ব্যাথাও হতে পারে। পরে এর ঠিক মত চিকিৎসা না হলে বা রোগ নির্ণয় না করতে পারলে, মাল্টি অর্গান ফেলিওর হয়ে রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

 


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

চিকিৎসা:- চিকিৎসকদের মতে একটি ওষুধেই সেরে যেতে পারে এই রোগ। তবে রোগ নির্ধারণের সময়ের ওপর নির্ভর করছে রোগীর সেরে ওঠার ব্যাপারটি। শরীরের এমন অংশে এই পোকা কামড়ায় যে মাঝে মাঝে সেটি বোঝা যায় না। আর এতেই সমস্যা তৈরি হয়। রোগীর প্রথমে জ্বর এলেও অ্যান্টিবায়োটিকে সেক্ষেত্রে কাজ হয় না। ফলে রুগীর অবস্থা আরও খারাপ হতে থাকে। তখন ডক্সিসাইক্সোলিন নামের এই ওষুধটি দিলে নিমেষেই রোগ প্রতিরোধ সম্ভব হয়।

বর্তমানে জ্বর আসলেই আমরা ভাবছি করোনা হয়েছে। কিন্তু সব ক্ষেত্রে তা হচ্ছে না। সেক্ষেত্রে পাঁচ দিনের বেশি জ্বর ১০২-৩ ডিগ্রি স্থায়ী হলেই টাইফয়েড ও ডেঙ্গির পরীক্ষার পাশাপাশি স্ক্রাব টাইফাসের পরীক্ষাও করাতে হবে। মনে রাখবেন যত তাড়াতাড়ি রোগ নির্ণয় সম্ভব হবে, তত তাড়াতাড়ি এর চিকিৎসা করা যাবে। তাই সতর্ক হন এবং যে কোনো অবস্থায় সবার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!