এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > করোনা আক্রান্ত স্বপন দেবনাথ! প্রার্থনা মন্দির থেকে মসজিদে! মন্ত্রী দাদুর জন্য কান্না খুদেদের

করোনা আক্রান্ত স্বপন দেবনাথ! প্রার্থনা মন্দির থেকে মসজিদে! মন্ত্রী দাদুর জন্য কান্না খুদেদের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলীর মন্ত্রী স্বপন দেবনাথের ‘মন্ত্রী দাদু’ বলেও একটি বিশেষ ডাকনাম আছে। কারণ রাজ্য সরকারের এই মন্ত্রী তাঁর আবাসস্থল দামোদর পাড়ায় তিনি নির্মাণ করেছেন এক অনাথ আশ্রম। এই আশ্রমে তিনি স্থান দিয়েছেন ১৪ জন নাবালক সহ ৪ জন দুস্থ বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের। শুধু আশ্রয় দিয়েই ক্ষান্ত হননি। এদের সকলেরই ভরণ-পোষণের দায়িত্বও তিনি নিজের কাঁধে বহন করে নিয়েছেন। সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত এই আশ্রমের আবাসিকদের সমস্ত নিয়ম বিধি স্বহস্তে তৈরী করে দিয়েছেন স্বপন বাবু। আশ্রম আবাসিকদের শরীর স্বাস্থ মজবুত রাখতে গরুর দুধ, মুরগির ডিম, মাছ, সবজি, মিষ্টি প্রতিদিন তাদের তাদের জন্য বরাদ্দ করা হয় । প্রত্যেকের প্রয়োজনের কথা চিন্তা করেই পৃথক খাবারের তালিকার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

জানা গেছে আশ্রমের শিশুদের মুখে রান্না করা খাবার তুলে দেওয়ার আগে নিজে সেই খাবার পরীক্ষা করে দেখেন মন্ত্রী স্বপনবাবু । শুধু তাই নয় এই শিশুদের পড়াশোনা, তাদের শরীরচর্চা, এমনকি তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্যও আলাদা আলাদা শিক্ষক নিয়োগ করেছেন স্বপন বাবু। আবার নিজেও নিয়মিত ক্লাস নেন তিনি। এই কারণেই তাদের আশ্রয়দাতা স্বপন বাবু এই আশ্রমের সকল শিশুদের অত্যন্ত প্রিয়। প্রিয় মন্ত্রীদাদুর দর্শন একদিন না পেলেই মন খারাপ হয় শিশুদের। আবার এই শিশুদের নিষ্পাপ মুখ একদিন না দেখতে পেলেই মন ভারাক্রান্ত হয় মন্ত্রীর।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সবার প্রিয় এই মন্ত্রীদাদু সম্প্রতি করোনায় সংক্রামিত হয়েছেন। তাঁর স্থান হয়েছে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতাল। মন্ত্রীদাদুর দ্রুত আরোগ্যের কামনায় আশ্রমের সকল আবাসিকেরা। গতকাল বুধবার করোনা রোগগ্রস্থ মন্ত্রীদাদুর দ্রুত আরোগ্য কামনায় প্রার্থনা হলে চললো তার মঙ্গল কামনায় প্রার্থনা জানাতে দেখা যায় আশ্রমের সকল আবাসিকদের। দুদিন ধরে মন্ত্রীদাদুর দেখা না পাওয়ায় মুখভার করে আছে আশ্রমের সকল শিশুরা। বারবার তারা ভগবানের কাছে প্রার্থনা করছে মন্ত্রীদাদুর দ্রুত সুস্থতার জন্য।

দাদু কবে আশ্রমে এসে তাদের গল্প বলবে, তাদের পড়া ধরবে তার জন্য অধীর আগ্রহে তারা অপেক্ষার প্রহর গুনছে। অনাথ আশ্রমের জনৈক কর্মী সমীর মুখোপাধ্যায় স্বপন বাবুর বর্তমান শারীরিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানিয়েছেন, ” দু’দিন আগে কলকাতায় স্বপনবাবুর করোনা পরীক্ষা হয়। রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এখন তিনি ভালো আছেন। তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ফিরে আসুন, এটাই আমরা চাই।”

শিশু অবস্থায় জ্ঞান হওয়ার আগেই নিজের মাতা-পিতাকে হারিয়েছিল বাবলু প্রজাপতি। দিদিমার আঁচল ধরে নবদ্দীপ রেলওয়ে প্ল্যাটফর্মএ সে ভিক্ষা করে নিজের খাবার জোগাড় করত। যখন সে মাত্র ৬ বছর বয়সের তখন সে নজরে পড়ে মন্ত্রী স্বপন বাবুর। তার দুরবস্থা স্থা দেখে মন্ত্রী তাকে স্থান দেন তাঁর অনাথ আশ্রমে। পূর্বের এই ভিক্ষাবৃত্তি করা বাবলু এখন ক্লাস ফাইভের ফার্স্টবয়। এই বাবুর মতই ছোটবেলায় মা বাবাকে হারিয়েছে শারীরিক প্রতিবন্ধী ঝুমা মাঝি।

তাকে নিয়ে খুব কষ্ট করে দিন কাটাতো পরিচারিকার কাজ করা তার ঠাকুরমার এই ঝুমাকেও আশ্রমে স্থান দিয়েছিলেন মন্ত্রী। আর এভাবেই তিনি হয়ে উঠেছেন সকলের প্রিয় মন্ত্রী দাদু।গতকাল মন্ত্রীর দ্রুত আরোগ্য কামনার্থে পূর্ব বর্ধমানের স্থানে স্থানে দেখা গেলো প্রার্থনা। পূর্ব বর্ধমানের কালনার বহু প্রাচীন সিদ্ধেশ্বরী কালী মন্দির, আটঘরিয়া রক্ষাকালী মন্দির, সিমলন অন্নপূর্ণা মন্দির পুজোর আয়োজন করেন পূর্ব বর্ধমানের তৃণমূল কর্মী ও সমর্থকরা।

এছাড়াও পূর্ব বর্ধমানের ধাত্রীগ্রামের বিবির জোল এলাকায় জনৈক তৃণমূল কর্মী স্বপন বাবুর দ্রুত আরোগ্যের জন্য কালীপূজার মানতও করলেন। তবে শুধু মন্দিরেই নয় মসজিদেও চললো প্রিয় মন্ত্রীর জন্য বিশেষ প্রার্থনা । পূর্ব বর্ধমানের ধাত্রীগ্রাম এর জণৈক বাসিন্দা বাসিন্দা জানিয়েছেন, ” এদিন দাদার আরোগ্য কামনায় মসজিদে প্রার্থনাসভার আয়োজন করা হয়।” পিতার স্বাস্থ প্রসঙ্গে মন্ত্রীপুত্র জানিয়েছেন, “চিকিৎসক জানিয়েছেন বাবার অবস্থা স্থিতিশীল।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!