এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > করোনা আবহে তাড়াহুড়ো করতে গেলে নেমে আসতে পারে চরম বিপদ! আশঙ্কা বাড়িয়ে জানাচ্ছে খোদ WHO

করোনা আবহে তাড়াহুড়ো করতে গেলে নেমে আসতে পারে চরম বিপদ! আশঙ্কা বাড়িয়ে জানাচ্ছে খোদ WHO



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বাড়ি বসে থাকতে থাকতে প্রত্যেকেই বোর হয়ে উঠেছে। এই সময় সরকারি ভাবেও আনলক প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। এই মাস থেকেই শুরু হয়েছে আনলক ৪। সেইমতো খুলে যাওয়ার কথা অনেক কিছুই। তবে এই পরিস্থিতিতে কি বলছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা? কতটা নিরাপদ এটা ভারতের মত একটা দেশের পক্ষে?

ভারতের মতোই ইউরোপের দেশগুলোতে আনলক শুরু হয়ে গেছে। তবে আগের তুলনায় করোনার প্রভাব খানিকটা কম এবং সেই কারণেই গোটা ইউরোপ ধীরে ধীরে লকডাউন তুলে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাইছে। বেশ কিছু দেশে সেই প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে ইতিমধ্যে। তবে ভারতবর্ষের ক্ষেত্রে সেটা অনেকটাই অনিশ্চিত বা বিপদজনক বলা যেতে পারে। এর কয়েকটা কারণ আছে।

প্রথমত: সচেতনতার দিক থেকে এখনও আমরা অনেকটাই পিছিয়ে। ফলে সমস্যা একটা হতেই পারে।দ্বিতীয়ত: যেভাবে এখনকার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার লক্ষ করা যাচ্ছে, সেক্ষেত্রে এত মানুষকে সাবধানে রাখাটাও একটা বড় চ্যালেঞ্জ।

তৃতীয়ত: চিকিৎসাব্যবস্থা অন্যান্য ইউরোপের দেশগুলির তুলনায় অনেকটা পিছিয়ে, ফলে সেদিকেও সমস্যা রয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে ভারতের মত দেশে করোনা যেভাবে প্রভাব ফেলেছে, তাতে অর্থনীতির ভিত বেশ আলগা হয়েছে বলেই মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা। আর এই পরিস্থিতি সামলাতে অনেক বছর লেগে যাবে বলেই তাদের ধারণা। অন্যদিকে সেই পরিস্থিতির কাটিয়ে উঠতে জনজীবন কিছুটা স্বাভাবিক করতে চাইছে সরকার। সেই মত আনলক প্রক্রিয়াগুলিতে ধাপে ধাপে অনেক জায়গাই খুলে গেছে। তবে এটা কতটা নিরাপদ?

এই প্রশ্নের জবাবে হু জানিয়েছে, লকডাউন তুলতে হলে চাই চূড়ান্ত পর্যায়ের নজরদারি। সামান্য বিধিনিষেধ শিথিল হওয়ার পর সাবধানতা অবলম্বন না করলে ফের দ্রুত গতিতে ছড়াতে পারে করোনা ভাইরাস। তখন পরিস্থিতি সামাল দেওয়া আরও কঠিন হবে বলেই মনে করছেন অনেকে। কারণ আমাদের প্রয়োজন সংক্রমণের পরিস্থিতি তৈরি হতে না দেওয়া। কারণ সেটা যদি থেকে যায়, তাহলে রোগটি চলতেই থাকবে। তাই আরও বেশি বেশি টেস্ট, সনাক্তকরণ এবং আইসলেশন প্রয়োজন বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে যেভাবে দেশে প্রতিদিন সংক্রমণের নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে, তাতে আনলক হলেও সকলের মনে কিন্তু চিন্তার মেঘ রয়েই গেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!