এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কংগ্রেস সভাপতির বনধের মঞ্চেই হাজির হয়ে গেলেন হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ, জল্পনা তুঙ্গে

কংগ্রেস সভাপতির বনধের মঞ্চেই হাজির হয়ে গেলেন হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ, জল্পনা তুঙ্গে



আগাম ঘোষণা জারি তৃণমূল আগেই জানিয়ে দিয়েছিল পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইস্যুকে সমর্থন করলেও কংগ্রেসের ডাকা বনধকে কোনোভাবেই মেনে নেবে না তাঁরা। এ কথার পরেও কীভাবে কংগ্রেস সভাপতির বনধের মঞ্চে হাজির হলেন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়? এমনটাই দাবি একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের। যা নিয়েই জল্পনা তুঙ্গে রাজনৈতিকমহলে।

প্রশ্ন উঠেছে কংগ্রেস শিবির থেকেও। তাহলে মমতা বন্দ্যোপধ্যায় কাকে সমর্থক করছেন? কংগ্রেস না বিজেপি। প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন অধীর চৌধুরী। আবার জবাবটা দিয়ে দিলেন তিনি নিজেই। বললেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বনধের বিরোধীতা করে আসলে মোদীজিকেই সমর্থন করলেন।

যুক্তিতে জানালেন, পেট্রোল-ডিজেল-রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধিতে আমজনতা নাস্তানাবুদ অবস্থা। কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে একজোট হয়ে সব বিরোধী শক্তি বনধ এর পথে হাঁটলেও একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসই বনধের বিরোধীতা করেছে। এমনকী বনধের বিরোধ করতে মন্ত্রীসভার সদস্যদেরও রাস্তায় নামিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজে রাস্তায় নেমে বনধ বিরোধী কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন।  তিনি আদতে রাজ্যবাসীকে দেখিয়ে দিয়েছেন,মুখে বিজেপি বিরোধীতার বুলি আওড়ালেও আসলে তিনি পেছনে তিনি মোদীজিকেই সমর্থণ করেন।

এর পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বিচারী আচরণের বিরুদ্ধেও সরব হলেন অধীর চৌধুরী। জানালেন,তিনি আবার রাজ্যে কংগ্রেসের বিরোধীতাও করেছেন। দিল্লিতে বনধকে সমর্থন করতে বিরোধী জোটের মঞ্চেও পাঠিয়ে দিয়েছিলেন দলের সাংসদকে। এদিনের দেশ জুড়ে বাম-কংগ্রেসের ডাকা বনধকে সমর্থন না করলেও মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ করতে রাস্তায় নামতে দেখা গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসকে।

তৃণমূলের বনধ বিরোধীতা কর্মসূচি আসলে স্ব-বিরোধীতারই নামান্তর,এমনটাই অভিযোগে জানালেন অধীর বাবু। কারণ কংগ্রেসের বনধের ডাকে সাড়া দিয়েছে বিজেপি বিরোধী সমস্ত দলগুলি। এমনকি বামফ্রন্টও এই ইস্যুর মোকাবিলায় এগিয়ে এসে কংগ্রেসের হাত ধরেছে। শুধুমাত্র তৃণমূলই এর বিরোধীতা করেছে।

অধীর চৌধুরীর মতো বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসুও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছেন। একইরকম সুরে তিনিও জানান,মুখে বিজেপি বিরোধীতার কথা বললেও আসলে কাজে সে প্রমাণ রাখতে পারছেন না নেত্রী। এদিনের বনধে সে নজিরই রাখলেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিজেপি বিরোধীতার মুখোশ আলগা হল এদিন। কেন্দ্রে জনবিরোধী নীতির বিরোধীতায় যে তৃণমূল নেই,সেটাই পরিষ্কার হয়ে গেল তৃণমূল কংগ্রেসের নীতিতে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!