এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কংগ্রেসকে আক্রমণ প্রশান্ত কিশোরের, জোর জল্পনা

কংগ্রেসকে আক্রমণ প্রশান্ত কিশোরের, জোর জল্পনা



 

সম্প্রতি এনআরসি থেকে শুরু করে সিটিজেনশিপ আমেন্ডমেন্ট অ্যাক্টের বিরুদ্ধে বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে বেশিরভাগ সরব হতে দেখা গেছে। এক্ষেত্রে অবশ্য সব থেকে এগিয়ে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং তার নেত্রী বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এরকম মুখ্যমন্ত্রীদের তালিকায় বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার থেকে শুরু করে উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক সহকারে অনেক মুখ্যমন্ত্রীরা রয়েছেন।

কিন্তু এনআরসি বিরোধিতায় সেইভাবে সামনে আসতে দেখা যাচ্ছে না ভারতবর্ষের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় কংগ্রেসকে। আর এবার জাতীয় কংগ্রেস এবং কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে রীতিমতো প্রশ্ন ছুঁড়তে দেখা গেল জনতা দল ইউনাইটেডের সহ সভাপতি প্রশান্ত কিশোরকে।

সম্প্রতি কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর উদ্দেশ্যে টুইট করে প্রশান্ত কিশোর বলেন, “এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে বড় লড়াইয়ে দেশের প্রধান বিরোধী দলকে সেইভাবে রাস্তায় দেখা যাচ্ছে না। মানুষের আন্দোলনে দেখা যাচ্ছে না কংগ্রেসকে। কংগ্রেস নেতৃত্ব নাগরিকদের স্বতঃস্ফূর্ত আন্দোলনে অংশ নিচ্ছেন না।”


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে গোটা দেশের বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি যেমন তাদের প্রতিবাদ আন্দোলন চালাচ্ছেন, তেমনই সমাজের বিভিন্ন অরাজনৈতিক সংগঠনগুলির পক্ষ থেকেও প্রতিবাদের ঝড় দেখা যাচ্ছে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন কলেজ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠন, বুদ্ধিজীবীদের একটা বড় অংশ এনআরসি এবং সংশোধিত নাগরিক আইনের বিরুদ্ধে তাদের বিরোধিতা প্রকাশ করেছেন।

কিন্তু সেভাবে রাস্তায় দেখা যাচ্ছে না ভারতবর্ষে বিজেপির সবথেকে বড় বিরোধীদল জাতীয় কংগ্রেসকে। আর এবার তা নিয়েই নিজের সুর চড়ালেন জনতা দল ইউনাইটেডের সহ-সভাপতি তথা প্রখ্যাত রাজনৈতিক রণনীতিকার হিসেবে পরিচিত প্রশান্ত কিশোর। তবে এক্ষেত্রে দেখা গেছে, গত শুক্রবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী একটি ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেছিলেন।

যাতে উল্লেখ ছিল, সাধারণ মানুষকে এবং তাদের আবেগকে মর্যাদা না দিয়ে কার্যত পেশিশক্তি দেখানোর পথেই হেঁটেছে কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু সোনিয়া গান্ধীর এই টুইটে সন্তুষ্ট নন জনতার ইউনাইটেডের সহ-সভাপতি। এক্ষেত্রে প্রশান্ত কিশোর দাবি করেছেন, যতক্ষণ সাধারণ মানুষের আন্দোলনে কংগ্রেস নেতৃত্ব সামিল হচ্ছেন না, ততক্ষণ সোনিয়া গান্ধীর মন্তব্য ভিত্তিহীন হিসেবে পরিচিত হবে। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, এর আগে সংশোধিত নাগরিক আইনকে সমর্থন করা নিয়ে খোদ নিজের দলের সুপ্রিমো তথা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন জনতা লিগের সহ সভাপতি তথা বিখ্যাত নির্বাচনী রণনীতি বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোর।

আর এবার দেশের বিজেপি বিরোধী সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দলের আচরণ নিয়ে টুইট করে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন প্রশান্ত কিশোর। আর বিশেষজ্ঞদের কাছে প্রশান্ত কিশোরের এই মন্তব্য যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ভারতবর্ষ জুড়ে বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে প্রশান্ত কিশোরের গুরুত্ব যে যথেষ্ট বেড়েছে, তা বলাই বাহুল্য। এমতাবস্থায় প্রশান্ত কিশোরের কংগ্রেসকে নিয়ে এই মন্তব্যের পরে আগামী দিনে এনআরসির বিরোধিতায় জাতীয় কংগ্রেস নিজের অবস্থান আরও শক্তিশালী করে কিনা! সেদিকেই লক্ষ্য থাকবে ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!