এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কংগ্রেসের ছাত্র পরিষদেও কি এবার বড়সড় পরিবর্তন, জল্পনা তুঙ্গে

কংগ্রেসের ছাত্র পরিষদেও কি এবার বড়সড় পরিবর্তন, জল্পনা তুঙ্গে



রাজ্য কংগ্রেসে বড়সড় রদবদল। অধীর চৌধুরীর হাত থেকে ব্যাটন গেল এবার সোমেন মিত্রের হাতে। গতকালই প্রদেশ কংগ্রেসের নতুন সভাপতি হয়েছেন সোমেন মিত্র। কিন্তু সভাপতি যখন বদল হল তাহলে কি কংগ্রেসের এরাজ্যের ছাত্র সংগঠনেও বদলের সংকেত আরও জোরালো হচ্ছে! কারন প্রাক্তন প্রদেশ সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরীর ঘনিষ্ট সৌরভ প্রসাদ বর্তমানে ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি।

সূত্রের খবর, কংগ্রেসের সাংগঠনিক নিয়মানুযায়ী এই ছাত্র পরিষদের সভাপতি হলে দলীয় স্তরে নির্বাচনে লড়তে হয়। সেইমত অধীর ঘনিষ্ট সৌরভ প্রসাদের বিরুদ্ধে  নেমে লড়াই দিয়েছেন সোমেন মিত্র ঘনিষ্ট সোমদীপ ঘোষ। পরে নির্বাচনে জয়ী হয়ে সৌরভ প্রসাদ সভাপতি হলে সহ সভাপতি হন সেই সোমদীপ ঘোষ। কিছুদিন আগেই ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্টা দিবসে সেই সৌরভ প্রসাদ এবং সোমদীপ ঘোষের অনুগামীদের মধ্যে প্রকাশ্যে বাদানুবাদ শুরু হয়। তার পর বেশ কিছু দিনচলে গেছে। গতকাল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বদল হওয়ায় সেই সৌমেন মিত্র ঘনিষ্ট সোমদীপ ঘোষের দাপট যে বাড়বে তা এককথায় বলাই যায়।

তবে শুধু কথায় নয়। এদিন ছাত্র পরিষদের দুই গোষ্টীর দুই নেতাই ইসলামপুরে মৃত ছাত্রের বাড়িতে গিয়েছেন। ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি সৌরভ প্রসাদ সেখানে উপস্থিত হতেই প্রদেশ কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি সৌমেন মিত্র নির্দেশে সেখানে উপস্থিত হন ছাত্র পরিষদের সহ সভাপতি সোমদীপ ঘোষও। জানা গেছে, ইসলামপুরের এই ঘটনায় শনিবার রাজ্যের প্রতিটা ব্লকে ব্লকে দুপুর 1 টা থেকে 2 টা পর্যন্ত বিক্ষোভ দেখাবে কংগ্রেসের এই ছাত্র সংগঠন। তাহলে কি পৃথক পৃথক ভাবে সেই বিক্ষোভ করবেন সৌরভ ও সোমদীপ?

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন এই সমস্ত জল্পনা উড়িয়ে ছাত্র পরিষদের সভাপতি সৌরভ প্রসাদ এবং সহ সভাপতি সোমদীপ ঘোষ বলেন, “বিক্ষোভ কর্মসূচীতে সকলে একসাথে অংশ নেবে। এমনকী এসএফআইয়ের ডাকা ছাত্র ধর্মঘটকে নৈতিক সমর্থন জানাব আমরা।” তবে ইসলামপুরে মৃত ছাত্রের জন্য যতই আন্দোলনে নামুক কংগ্রেসের ছাত্র সংগঠন, দলীয় স্তরে প্রদেশ সভাপতি অধীর চৌধুরীর জায়গায় সৌমেন মিত্র আসায় ছাত্র পরিষদে অধীর ঘনিষ্ট সৌরভ এবং সৌমেন ঘনিষ্ট সোমদীপের বিবাদ যে বৃদ্ধি পাবে তা এককথায় বলাই যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!