এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলেজে কলেজে টাকার বিনিময়ে ছাত্র ভর্তি নয়, সংগঠনকে সাফ জানালেন নেত্রী

কলেজে কলেজে টাকার বিনিময়ে ছাত্র ভর্তি নয়, সংগঠনকে সাফ জানালেন নেত্রী



রাজ্যে কলেজ গুলিতে নতুন শিক্ষা বর্ষে ভর্তির সময়ে আর্থিক লেনদেনের ঘটনা একটি পরিচিত শিক্ষাক্ষেত্রে অর্থনৈতিক দুর্নীতি । এই রকমই দুর্নীতিতে গত শিক্ষাবর্ষে অভিযুক্ত হয়েছিলো তৃণমূল ছাত্র পরিষদের (টিএমসিপি)। এই বছর যাতে অতীতের সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সেই বিষয়ে দলের কলেজ সংগঠনগুলির নেতৃবৃন্দ কে আগাম সতর্ক করলেন টিএমসিপির রাজ্য সভানেত্রী জয়া দত্ত। পাশাপাশি কলেজ ভর্তির আবেদনকারী সকল শিক্ষার্থীর কাছে আবেদন করলেন, ”কাউকে টাকা দেবেন না।” সোস্যাল মিডিয়ায় এদিন শিক্ষার্থী তথা অভিভাবকদের সচেতনার উদ্দেশ্য তিনি লিখলেন, “যোগ্যতা ও মেধার ভিত্তিতে কলেজে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। কেউ প্রলোভনে পা দেবেন না।” রাজ্যের বর্তমান শিক্ষা পরিকাঠামো অনুসারে সব কলেজে অনলাইনে ছাত্র ভর্তির ব্যবস্থা থাকলেও , অসাধু চক্রের ফাঁদে পরে বহু ছাত্র ছাত্রী প্রতিবছর আর্থিক সংকটের মুখোমুখি হচ্ছেন। অনেক ক্ষেত্রেই এই অসাধু চক্র নিজেদের তৃণমূল কংগ্রেস বলেও পরিচয় দিচ্ছে। এদিন এই প্রসঙ্গে ছাত্র পরিষদ নেত্রী জয়া দেবী বললেন , ”টিএমসিপি-র নাম ভাঙিয়ে অনেকেই ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছে। গত বছর এ ধরনের অভিযোগ পেয়ে দল অভিযুক্তদের পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিল।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এ বার টিএমসিপির কারও নামে অভিযোগ উঠলে দল থেকে তাঁকে বরখাস্ত করা হবে।” উল্লেখ্য উচ্চ মাধ্যমিক, আইএসসি, সিবিএসসি এর ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার অল্প দিনের মধ্যেই একটি প্রতারক চক্রের সন্ধান পাওয়া গেছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে নির্দিষ্ট ফোন নম্বরে ফোন করলে বা তাদের সাথে ফেসবুকে যোগাযোগ করলে প্রেসিডেন্সি, বেথুন, সুরেন্দ্রনাথ স্কটিশ চার্চ, মৌলানা আজাদ কলেজের মতো রাজ্যের সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি করে দেওয়ার সুযোগ করে দিতে পারেন তারা। এই মর্মে ফেসবুকে অবধি পোষ্টের খবর পাওয়া গেছে। এই সব খবরে কান না দিয়ে জয়া দেবী শিক্ষার্থীদের পরামর্শ দিলেন ”ওয়েবসাইট দেখ, ফর্ম ফিলাপ কর।” প্রসঙ্গত রাজ্যের প্রায় সব কলেজের ছাত্র সংসদই এখন তৃণমূল কংগ্রেসের শাসনাধীন। সেই ছাত্র সংসদ যাতে ছাত্র ভর্তি সময়ে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনায় জড়িয়ে না পরে সেই বিষয়েও টিএমসিপি নেতৃত্বের পক্ষ থেকে তাদের সচেতন করা হয়েছে। এদিকে টিএমসিপি নেত্রী জয়া দেবীর সতর্ক বার্তাকে লোক দেখানো বলে অ্যাখ্যা দিয়ে এসএফআই-এর রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য বললেন , ”টিএমসিপির এই মুখোশটি খুবই সুন্দর। কিন্তু এতে ভবি ভুলছে না। তৃণমূলের প্রতিটি স্তরেই টাকার বিনিময়ে সব কাজ হয়। ভর্তির প্রক্রিয়াটি আর কয়েক দিন গেলেই বুঝতে পারবেন, যে ওরা মুখে যা বলছে, করছে তার ঠিক উল্টো।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!