এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মুখ্যমন্ত্রীর রক্তচাপ বাড়াতে রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

মুখ্যমন্ত্রীর রক্তচাপ বাড়াতে রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়



প্রাক পঞ্চায়েত নির্বাচনী পর্যায়ে বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্য বিদ্রুপ করে বললেন ,”নবান্নে বসে মুখ্যমন্ত্রীর মতো নয়, তৃণমূল নেত্রীর মতো আচরণ করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।” উল্লেখ্য রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি জারী হওয়ার সময় থেকেই হিংসা, সন্ত্রাস, খুন জখম প্রভৃতির মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে চলেছে। প্রতি ক্ষেত্রেই রাজ্যের শাসক পক্ষ – বিরোধী পক্ষ একে অন্যকে দোষারোপ করছে। এদিন সকালে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সাথে আলোচনা করতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় রাজভবনে যান।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

সেখান থেকে বেরিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বললেন, “মুর্শিদাবাদ সবথেকে বেশি অশান্তি হয়েছিল, অথচ মুখ্যমন্ত্রী বলছেন সেখানে নাকি কিছুই হয়নি। স্থানীয়রা তিনজন তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন। কিন্তু, তাদের মধ্যে দু’জনকে ক্লিনচিট দেয় প্রশাসন। প্রশাসনের তরফে বলা হয়, ওই দু’জন কোনও গন্ডগোল করেনি। বরং শান্তি রক্ষা করতে সাহায্য করেছে। ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষ আদৌ ভোট দিতে যাবেন কি না তা নিয়ে আমার সন্দেহ রয়েছে।” রাজ্যপালের সাথে এদিনের আলোচনার বিষয় সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বললেন, “মনোনয়নের সময় রাজ্যে যে অশান্তির ছবি ধরা পড়েছিল সেগুলি বলা হয়। এছাড়া যেভাবে পুলিশকে ব্যবহার করে তৃণমূল গোটা রাজ্যে হিংসা ছড়িয়েছিল তাও জানানো হয়েছে।” আসন্ন নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর আবেদন না করে প্রতিবেশী রাজ্য থেকে পুলিশের সাহায্য নিয়ে নির্বাচন করার প্রসঙ্গে তিনি বললেন,“নির্বাচনের দিন যেখানে কেন্দ্র কেন্দ্রীয় বাহিনী দিতে প্রস্তুত, সেখানে রাজ্য তা প্রত্যাখ্যান করছে। বরং অন্য রাজ্য থেকে বাহিনী নিয়ে এসে ভোট করতে চাইছে রাজ্য। এটা তো ফেডেরাল পরিকাঠামোর পরিপন্থী। একজন মুখ্যমন্ত্রী এটা কীভাবে বলতে পারেন ? আসলে নবান্নে বসে মুখ্যমন্ত্রীর মতো নয়, তৃণমূল নেত্রীর মতো আচরণ করছেন উনি।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!