এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অথৈ জলে রাজ্যের চিটফাণ্ডে টাকা হারানোর আমানতকারীদের ভাগ্য, কারণ জেনে নিন

অথৈ জলে রাজ্যের চিটফাণ্ডে টাকা হারানোর আমানতকারীদের ভাগ্য, কারণ জেনে নিন



বিরোধীদের তরফে মাঝেমধ্যে অভিযোগ করা হত, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই আসলে খাঁচাবন্দি তোতাপাখি। আর বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে এই অভিযোগ সবথেকে বেশি করতে দেখা যেত বাংলার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে। আর সেই তৃণমূল কংগ্রেসকে অস্বস্তিতে ফেলা সারদা এবং রোজভ্যালি কাণ্ডে তদন্তপ্রক্রিয়া এখন কার্যত অথৈ জলে চলে যাওয়ায় সিবিআইয়ের ভূমিকা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

অনেকে বলছেন, এই তদন্ত প্রক্রিয়া অথৈ জলে চলে যাওয়ায় তৃণমূলের হয়ত বা সুবিধা হল। কিন্তু এর ফলে তদন্ত প্রক্রিয়া কার্যত ভেস্তে যাওয়ার মুখে। বস্তুত, প্রায় এক সপ্তাহ হতে চলল। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এই সারদা এবং রোজভ্যালি কাণ্ডে জন্য নতুন তদন্তকারী অফিসার ঠিক করতে পারল না কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। যার ফলে তাদের ভূমিকা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত সারদা মামলার পুরোপুরি তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ হয়নি। বারবার চার্জশিট দেওয়ার তারিখ পিছিয়ে পড়ছে। সেক্ষেত্রে ফাইনাল চার্জশিট জমা পড়লে কোন কোন প্রভাবশালীর নাম রয়েছে তাতে, তা জানা যাবে। কিন্তু পাঁচ বছর সময় পেরিয়ে গেলেও, কেন চূড়ান্ত চার্জশিট দেওয়া হচ্ছে না! তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। একইভাবে সারদার পাশাপাশি রোজভ্যালির তদন্তের ক্ষেত্রেও ধীরগতি দেখা যাওয়ায় অনেকের মনেই অসন্তোষ ফুটে উঠছে।

সেদিক থেকে রোজভ্যালি কর্তা গৌতম কুন্ডুর স্বর্ন বিপনী সংস্থা থেকে টাকা পাচারের বিষয়টি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। আর এরই মাঝে সারদা ও রোজভ্যালি মামলার তদন্তকারী অফিসারদের বদলি করে দেওয়ায় দুই মামলার কাজ সম্পূর্ণরূপে থমকে গিয়েছে। জানা গেছে, বদলির আদেশ চলে আসায় দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকরা এখন আর এই মামলার ব্যাপারে তেমন নাক গলাতে চাইছেন না। ফলে সেদিক থেকে এই মামলার বর্তমান অবস্থান কী হবে! তা নিয়ে ধন্দে রয়েছেন সকলেই।

একাংশের প্রশ্ন, যদি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এই নারদা এবং রোজভ্যালি কাণ্ড নিয়ে অতটাই উদগ্রীব হবেন, তাহলে তারা কেন চটজলদি এর জন্য নতুন অফিসার নিয়োগ করছেন না! তবে নানা মহলে এই ব্যাপারে প্রশ্ন ওঠার পর সিবিআই অবশ্য ড্যামেজ কন্ট্রোল করতেই ব্যস্ত। তাদের দাবি, দ্রুত এই ব্যাপারে তদন্তকারী অফিসার নিয়োগ করা হবে। কিন্তু কবে সেই তদন্তকারী অফিসার নিয়োগ হবে! আর কবেই বা রোজভ্যালি এবং সারদা মামলার সদ্গতি হবে!  ফলে অভিজ্ঞমহলের মতে এখন অথৈ জলে রাজ্যের চিটফাণ্ডে টাকা হারানোর আমানতকারীদের ভাগ্য।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!