এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > চীন থেকে সরে এসে বিনিয়োগ ভারতে, ভারতীয় অর্থনীতিতে আশার খবর

চীন থেকে সরে এসে বিনিয়োগ ভারতে, ভারতীয় অর্থনীতিতে আশার খবর



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিশেষজ্ঞদের অংকের বিচার বলছে, করোনা ভাইরাসের ত্রাসে প্রায় থমকে গিয়েছে বিশ্বের অর্থনীতি। একই অবস্থা ভারতেরও। ভারতীয় অর্থনীতির আকাশে অবশ্য করোনার বহু আগে থেকেই কালো মেঘ ছিল, করোনা সেই পরিস্থিতিকে আরও জটিল করে তুলেছে বলে মত অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। অন্যদিকে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আসলেও এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ও বিশ্বায়নের প্রভাবে তলিয়ে যাওয়া অর্থনীতিকে টেনে আগের জায়গায় নিয়ে আসতে সময় লেগে যাবে বহুদিন বলে মনে করা হচ্ছে।

অন্যদিকে ভারতীয় অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে এই মুহূর্তে প্রয়োজন বিনিয়োগ। আর সেই কাজেই এবার উঠে পড়ে লেগেছে ভারত সরকার। করোনা পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিক মহলে চীন হয়ে উঠেছে ব্রাত্য। বস্তুত চীনের বিরুদ্ধে গিয়ে অনেকেই চীন থেকে ব্যবসা গোটানোর পক্ষপাতি। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে তৎপর ভারত সরকার। এবং আশার কথা শোনা যাচ্ছে, তাইওয়ানের অন্যতম জনপ্রিয় কোম্পানি এবার চীন থেকে সরে এসে ভারতে বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা করছে।

বিশ্ববাজারে ফক্সকন একটি বিখ্যাত কোম্পানি, যা মূলত তাইওয়ানের বলে জানা যায়। এই কোম্পানি আইফোনের যন্ত্রাংশ সঠিকভাবে স্থাপন করে বলে জানা যায়। প্রসঙ্গত আইফোনের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সমস্ত যন্ত্রাংশকে ধাপে ধাপে ঠিক করে লাগানো। অন্যদিকে, চীনের বিরুদ্ধে আমেরিকার যুদ্ধংদেহী মনোভাবের পরিপ্রেক্ষিতে এবার ফক্সকন সংস্থা চীন থেকে সরে আসতে চাইছে বলে খবর। ইতিমধ্যে ভারতের তামিলনাড়ুতে এবং অন্ধপ্রদেশে ফক্সকন কোম্পানির দুটি অফিস আছে বলে জানা গেছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

ভারতের ফক্সফনের দুটি অফিসে আইফোন এবং শাওমি ফোনের যন্ত্রাংশ লাগানো হয়। আর এবার বিনিয়োগের মাধ্যমে এই কোম্পানি ভারতে তাঁদের তৃতীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে আগ্রহী বলে জানা যাচ্ছে। তবে কোম্পানি সূত্রে জানা গিয়েছে, ভারতের বুকে বিনিয়োগ করতে আগামী তিন বছরের বেশি সময়কাল লাগতে পারে। তবে ফক্সকন সংস্থার তরফ থেকে বিনিয়োগের মাধ্যম হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে দীর্ঘমেয়াদী পিএলআই স্কিমের   মাধ্যমে ম্যানুফ্যাকচারিং ক্ষেত্র বাড়ানোর দিকে নজর দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। এতে ভারতে কাজের সুযোগও বাড়বে বলে আশা রাখা হচ্ছে।

তবে ভারতের বুকে এই নামজাদা কোম্পানির বিনিয়োগ যে অর্থনীতির ওপর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলবে সে কথা নিঃসন্দেহে বলা যায়। অন্যদিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারতীয় অর্থনীতি ইতিমধ্যে খাদের ধারে। এর ওপর যদি দেশে দীর্ঘদিন ধরে করোনা স্থায়ী হয় তাহলে কিন্তু ভারতের অর্থনীতি আরও প্রবল ক্ষতির সম্মুখীন হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এই অবস্থায় নতুন করে ভারতীয় অর্থনীতিতে বিনিয়োগ অক্সিজেনের যোগান দেবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। আপাতত ভারতীয় অর্থনীতিকে বাঁচাতে আর কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে, এখন সেদিকে লক্ষ্য রাখছেন অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!