এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > ছেঁটে ফেলা হল শিশির- শুভেন্দুকে? তৃণমূলের নয়া কার্যকলাপে ফের শুরু জল্পনা, অনুগামীদের বাড়ছে ক্ষোভ!

ছেঁটে ফেলা হল শিশির- শুভেন্দুকে? তৃণমূলের নয়া কার্যকলাপে ফের শুরু জল্পনা, অনুগামীদের বাড়ছে ক্ষোভ!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সাংগঠনিক গুরুত্ব না পাওয়ার পর থেকেই দলের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখতে দেখা যাচ্ছে শুভেন্দু অধিকারীকে। নিজের অনুগামীদের দিয়ে পোস্টার ব্যানার তৈরি করিয়ে সাধারণ মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছেন তিনি। স্বাভাবিক ভাবেই তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে নানা মহলে জল্পনা ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু এবার শাসক দলের মিছিলে শিশির অধিকারী এবং শুভেন্দু অধিকারীর কোনো ছবি চোখে না পড়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল। সূত্রের খবর, উত্তরপ্রদেশের এক তরুণীকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে এবং কেন্দ্রের কৃষক আইনের বিরুদ্ধে রবিবার কাঁথির মারিশদা থেকে নাচিন্দা পর্যন্ত তৃনমূলের পক্ষ থেকে একটি পদযাত্রা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল।

কিন্তু সেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি থাকলেও অধিকারী গড়ের অন্যতম দুই সম্রাট শিশির অধিকারী এবং শুভেন্দু অধিকারীর কোনো চিহ্ন ছিল না। যার ফলে ব্যাপক জল্পনা তৈরি হচ্ছে। যে অধিকারী গড় তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি, সেখানে অধিকারী পরিবারকে বাদ দিয়ে এইরকম কর্মসূচি হল কেন! তা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। তাহলে কি দলের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব বাড়ছে অধিকারী পরিবারের?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দলের সাংগঠনিক রদবদলে শুভেন্দু অধিকারীর ক্ষমতা অনেকটাই খর্ব করা হয়েছে। আর তারপর থেকেই দলীয় কিংবা সরকারি কোনো কর্মসূচিতেই দেখা যাচ্ছে না রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রীকে। কিন্তু এবার পূর্ব মেদিনীপুরে মিছিল হলেও সেখানে শুভেন্দু অধিকারী বা শিশির অধিকারীর কোনো ছবি না থাকায় চিন্তা বাড়তে শুরু করেছে তৃণমূলের অন্দরমহলে। অনেকে বলছেন, দলের মধ্যে শুভেন্দু অধিকারীর গুরুত্ব অনেকটা কমে যাওয়ায় অনেকেই পদে টিকে থাকতে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তাই শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে ভালো হওয়ার জন্য এদিনের কর্মসূচিতে শুভেন্দু অধিকারী বা শিশির অধিকারীর কোনো ছবি রাখা হল না। কিন্তু যে অধিকারী পরিবার বহু সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে দলকে প্রতিষ্ঠা করেছেন সেখানে, তাদের এভাবে ব্রাত্য রাখা হলে তৃণমূলের অনুগামীরা বিদ্রোহ ঘোষণা করতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। আর বিধানসভা নির্বাচনের আগে যদি এই পরিস্থিতি তৈরি হয়, তাহলে তৃণমূল যে পূর্ব মেদিনীপুরে অনেকটাই চাপে পড়বে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

তবে শুভেন্দু অধিকারী এবং শিশির অধিকারীর ছবি না রাখা নিয়ে দলের একাংশ কিন্তু ইতিমধ্যেই সরব হতে শুরু করেছেন। এদিন এই প্রসঙ্গে কাঁথি তিন নম্বর ব্লকের সভাপতি তথা জেলা পরিষদের সদস্য নন্দদুলাল মাইতি বলেন, “শুভেন্দুবাবু এবং শিশিরবাবু ছাড়া আমরা কিছুই বুঝি না। তবে এটা একটা ভুল হয়ে গিয়েছে। বিষয়টি আমাদের নজরে ছিল না।” তবে এই বিষয়ে তৃণমূলকে পাল্টা কটাক্ষ করতে শুরু করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এদিন এই প্রসঙ্গে কাঁথি সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, “তৃণমূলের কর্মসূচিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া পূর্ব মেদিনীপুর শুভেন্দু অধিকারি এবং শিশির অধিকারীর ছববি ব্যবহার করাটা অঙ্গ হয়ে গিয়েছিল্ এখন বোধহয় অনেকে শুভেন্দুর গুরুত্ব কমের ব্যাপারটি আঁচ করতে পারছেন। তাই তার ছবিও দেখা যাচ্ছে না।”

তবে গোটা পরিস্থিতিতে ড্যামেজ কন্ট্রোল করেছেন জেলা তৃণমূল সভাপতি শিশির অধিকারী। তিনি বলেন, “আমার বা শুভেন্দুর ছবি থাকল কিনা, সেটা বড় কথা নয়। দলের কর্মসূচিই বড় কথা।” কিন্তু শিশিরবাবু মুখে যে কথাই বলুন না কেন* অধিকারী পরিবারের সঙ্গে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের দূরত্ব তৈরি হচ্ছে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। সব মিলিয়ে এবার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় এবং আগামী দিনে ভোটবাক্সে এর প্রভাব পড়ে কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!