এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এই ভোটে হার হলো বিজেপির, ঘুরে দাঁড়াচ্ছে প্রাক্তন শাসকদল

এই ভোটে হার হলো বিজেপির, ঘুরে দাঁড়াচ্ছে প্রাক্তন শাসকদল



2019 এর লোকসভা ভোটে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে দিল্লির মসনদ দখল করে বিজেপি। কিন্তু তারপর থেকেই বিজেপির ঝুলিতে সেই অর্থে কোনো নির্বাচনে জয় নেই। ইতিমধ্যে হয়ে গেছে মহারাষ্ট্র, ঝাড়খন্ড, হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচন। হরিয়ানাতে কোন ভাবে বিধানসভা দখল করলেও মহারাষ্ট্র ও ঝাড়খন্ডে মুখ থুবড়ে পড়েছে বিজেপি শিবির। অন্যদিকে, ছত্তিশগড়ে বিজেপিকে সরিয়ে একের পর এক পুরভোট জিতে চলেছে কংগ্রেস। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে সবমিলিয়ে বিজেপি শিবির এই মুহূর্তে রাজনৈতিক মঞ্চের বিশেষ সুবিধাজনক জায়গায় নেই। উপরন্তু যোগ হয়েছে এন আর সি ও সিএএ নিয়ে বিতর্ক।

মহারাষ্ট্র, ঝাড়খণ্ডের পর এবার ছত্তিশগড়েও বিজেপি পিছিয়ে পড়ল। ছত্তিশগড়ের লোকসভা ভোটে কংগ্রেস একেবারে পেছনের সারিতে ছিল। কিন্তু বিধানসভা ভোটে ছত্তিশগড়ে কংগ্রেস বিপুল ভোটে জয়লাভ করে এবং সরকার গঠন করে। আর তারপর থেকেই একের পর এক পুরসভা দখল করে নিচ্ছে ছত্তিশগড়ের। এখনো পর্যন্ত আটটি পুরসভা দখল করে নিয়েছে কংগ্রেস। যার মধ্যে রায়পুর, রাজনন্দগাঁও, জগদলপুর, বিলাসপুর, দুর্গ, ধামাত্রী, চিরিমিরি, রায়গড় সহ একাধিক পুরসভা। উল্লেখ্য, কিছুদিনের মধ্যেই অম্বিকাপুর এবং কোরবায় পুরকর্পোরেশনের মেয়র পদে নির্বাচন। কংগ্রেস যথেষ্ট আশাবাদী এই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এ প্রসঙ্গে কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি মোহন মারকম জানিয়েছেন, যেভাবে একের পর এক পুরসভা কংগ্রেসের হাতে এসেছে, তাতে নিশ্চিত ভাবে জোর দিয়ে বলা যায় বাকি দুটি পুর নির্বাচনে কংগ্রেস বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে। কংগ্রেস সূত্রে খবর, ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল সরকারের উন্নয়নের ফলে মানুষ বিপুল ভোট দিচ্ছে কংগ্রেসকে। অন্যদিকে, বিজেপির অভিযোগ কংগ্রেস অর্থবলে মানুষের ভোট কিনছে। বিজেপি নেতা বিক্রম বিষেনডি এই বিষয়টি নিয়ে দাবি জানিয়েছেন, এভাবে বেশিদিন ক্ষমতা দখল করে থাকা যাবেনা। উল্লেখ্য, লোকসভা ভোটের পর থেকেই একাধিক রাজ্যে কংগ্রেস ভালো ফল করছে।

লোকসভা ভোটের পর থেকে কংগ্রেস নিজস্ব সমীকরণে ভোট লড়ছে এবং জয় লাভ করছে। মহারাষ্ট্র, ঝাড়খন্ড বিধানসভা ভোটে তা পরিস্ফুট। সামনে আসছে দিল্লি বিধানসভার ভোট এবং বিহার বিধানসভার ভোট। অন্যদিকে, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, সারা দেশজুড়ে যেভাবে এনআরসি বিরোধিতা শুরু হয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে, তাতে যথেষ্ট চিন্তার ভাঁজ পড়েছে কেন্দ্রীয় বিজেপি মহলে। তার ওপরে সদ্য যোগ হয়েছে জেএনইউতে হামলার ঘটনা। সমস্ত ব্যাপারগুলি পর্যালোচনা করে দেখা যাচ্ছে, বিজেপি যথেষ্টই কোণঠাসা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে। আপাতত সামনের নির্বাচনে জনগণ কার দিকে নিজেদের ভোট দেয়, সে দিকে লক্ষ্য রাখবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকগণ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!