এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > চাকরিপ্রার্থীদের জন্য চাকরির বড় সুখবর! জানুন বিস্তারিত

চাকরিপ্রার্থীদের জন্য চাকরির বড় সুখবর! জানুন বিস্তারিত



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- জীবনে শিক্ষক বা শিক্ষিকা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন? নিজের আদর্শে গড়ে তুলতে চান যুব সমাজকে? তবে আপনার জন্য রয়েছে চাকরির সুখবর। আর্মি স্কুলে পড়ানোর জন্য পাওয়া গেছে চাকরির খবর। তাই শিক্ষকতা করার স্বপ্ন পূরণের জন্য তাই জেনে নিন করণীয় বিষয় সমূহ।

সম্প্রতি জানা গেছে, আর্মি পাবলিক স্কুলে ৮০০০ শিক্ষক শিক্ষিকার সন্ধান করা হচ্ছে। ফলে যোগ্যতা অনুযায়ী সেই মত আবেদন করার জন্য অনলাইন ফর্ম পূরণ শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে। আর বর্তমান পরিস্থিতিতে তাই যোগ্যতা এবং আগ্রহ থাকলে এই সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করার আগে দেখে নিন নির্ধারিত বিষয়গুলি।

জানা গেছে, পোস্ট গ্রাজুয়েট,ট্রেইন্ড গ্রাজুয়েট,প্রাইমারি শিক্ষক পদে শিক্ষক শিক্ষিকা নেওয়া হচ্ছে। জানা গেছে, ৮০০০ শূন্য পদের জন্য এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। আবেদনকারীদের মধ্যে থেকে যোগ্যতা সম্পন্ন ৮০০০জনকে বেছে নেওয়া হবে বলে জানা গেছে। তবে আবেদনের শেষ তারিখ ২০/১০/২০২০ বলে জানা গেছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তবে, আবেদনকারীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা হিসেবে বলা হয়েছে, ১লা এপ্রিল ২০২১ এর ভিত্তিতে অনভিজ্ঞ শিক্ষক পদপ্রার্থীদের বয়স হতে হবে ৪০ বছরের মধ্যে। এছাড়া, অভিজ্ঞ শিক্ষকদের ক্ষেত্রে বয়স ১লা এপ্রিল ২০২১ এর ভিত্তিতে ৫৭ বছরের মধ্যে হতে হবে বলে জানান হয়েছে। তাই নির্ধারিত বয়স হলে দেরি না করে আজই আবেদন করতে পারেন। তবে সেই সঙ্গে মিলে যেতে হবে শিক্ষাগত যোগ্যতা।

শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে জানা গেছে, পোস্ট গ্রাজুয়েট এবং অভিজ্ঞতা সম্পন্ন আবেদনকারীদের অন্তত বিএড পাশ হতে হবে। তবে প্রাইমারি শিক্ষকদের ক্ষেত্রে নিয়ম খানিক আলাদা। এক্ষেত্রে জানা গেছে, প্রাইমারি শিক্ষকদের বি এড এর সাথে দুই বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। তবেই তাঁরা আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের পদ্ধতি হিসেবে বলা হয়েছে, আবেদনকারীরা অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। অনলাইনে আবেদন করার ক্ষেত্রে, aps.csb.in ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে বলে জানা গেছে। সেইসঙ্গে পরীক্ষার ফি অনলাইনে, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, নেট ব্যাঙ্কিং অথবা চালানের মাধ্যমে জমা দিতে হবে।

তবে এক্ষেত্রে প্রতি আবেদনকারীর ক্ষেত্রে ৫০০ টাকা জমা দিতে হবে বলে জানা গেছে। তবে এখানে জেনে রাখা প্রয়োজন যে, এই অর্থ একবার জমা হয়ে গেলে কোনোভাবেই ফেরতযোগ্য নয়। সেইসঙ্গে নির্বাচনের পদ্ধতি হিসেবে জানানো হয়েছে,
১) প্রথমে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া হবে।
২) সেই পরীক্ষায় পাস করলে ভারতের বিভিন্ন সেন্টারে ইন্টারভিউ নেওয়া হবে।
৩) এরপর, সর্বশেষে শিক্ষকতার দক্ষতা এবং কম্পিউটারে দক্ষতা যাচাই করা হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!