এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > চাকরি প্রার্থীদের জন্য সুখবর? রাজ্য সরকারের ২৫০-এরও বেশি পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি শীঘ্রই?

চাকরি প্রার্থীদের জন্য সুখবর? রাজ্য সরকারের ২৫০-এরও বেশি পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি শীঘ্রই?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – চলতি বছরে রাজ্য ও দেশ জুড়ে করোনা সংক্রমণ ও করোনা নিয়ন্ত্রণের লকডাউনের ফলে বহু মানুষের মানুষ কর্মচ্যুত হয়েছেন। লকডাউনের কারণে বেশকিছু সরকারি পরিকল্পনা স্থগিত রাখা হয়েছে।এরফলে আগামী দিনে সরকারি চাকরি প্রার্থীরা আদৌ চাকরি পাবেন কিনা তা নিয়ে তাদের মধ্যে যথেষ্ট দুশ্চিন্তা রয়েছে। এই পরিস্থিতির মধ্যে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পক্ষ থেকে খুশির খবর এলো। রাজ্যে করোনা সংক্রমণ থাকলেও রাজ্যের সরকারি দপ্তরগুলিতে নিয়োগ প্রক্রিয়া ব্যাহত হবে না পাবলিক সার্ভিস কমিশন পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। আগামী সপ্তাহে একসঙ্গে অনেকগুলো নিয়োগের বিজ্ঞাপন প্রকাশ করতে চলেছে পিএসসি। যার মোট সংখ্যা হলো ২৬১।

বিশেষ সূত্রে জানানো হয়েছে, রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের অধীনস্থ বিভিন্ন কলেজে পাঠদানের জন্য মোট ১৭১ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর নিয়োগ করবে পাবলিক সার্ভিস কমিশন।অন্যদিকে রাজ্য সরকারের অধীনস্থ বিভিন্ন দপ্তরগুলির আর্থিক বিষয়ে তদারকির জন্য অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস সার্ভিসের আওতায় মোট ৭০ জন অফিসার নিয়োগ করা হবে। ইতিমধ্যে রাজ্যের অর্থ দপ্তর এই ৭০ জন অফিসার নিয়োগের জন্য পিএসসির কাছে প্রস্তাব দিয়েছে।

অনুরূপভাবে রাজ্যের উদ্যানপালন দপ্তরে নিয়োগ করা হবে মোট ২০ জন প্রযুক্তি সহায়ক।যাদের নিয়োগের সুপারিশ ইতিমধ্যেই উদ্যানপালন দপ্তর পিএসসির কাছে পাঠিয়েছে।এই সমস্ত নিয়োগ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন চলতি মাসের গোড়ার দিকেই তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে চলেছে পিএসসি। যার সংখ্যা হতে চলেছে ২৬১। এমনটাই এই বিশেষ সূত্রে জানা যাচ্ছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তবে, এপ্রসঙ্গে উল্লেখযোগ্য যে, এই পদের বিজ্ঞাপন অল্পদিনের মধ্যেই প্রকাশ করা হলেও, এই পদগুলির নিয়োগ পরীক্ষা কবে নেওয়া হবে তা এখনো সঠিকভাবে জানা যাচ্ছে না। কারণ রাজ্যের করোনা সংক্রমনের কারণে আগামী ৩ রা সেপ্টেম্বর থেকে পূর্বনির্ধারিত ৩৭ টি লিখিত পরীক্ষা এখনকার জন্য স্থগিত করে রেখেছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির পরিবর্তন না ঘটলে নিয়োগ পরীক্ষার আয়োজন করা পিএসসির পক্ষ্যে যথেষ্ট কষ্টসাধ্য ব্যাপার।তবে, করোনা সংক্রমণ কালেও রাজ্য সরকার নিয়োগ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে তাও যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

এ প্রসঙ্গে পিএসসির জনৈক অফিসার জানিয়েছেন, ” লকডাউন পর্বে আমরা কাজ করেছি। বর্তমানে লিখিত পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। তাই ডিজিটাল মাধ্যমে ইন্টারভিউয়ের কাজ জারি রয়েছে। রাজ্য সরকার সবুজ সঙ্কেত দিলেই পিএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু করে দেবে। ”

অন্যদিকে, রাজ্যে করোনা সংক্রমনের কারণে চাকরির নিয়োগের পরীক্ষার নিয়মের বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। যার মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হল, পূর্বে এক একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে মোট ৫০০ থেকে ৬০০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে পারতেন। কিন্তু সম্প্রতি করোনা সংক্রমণের কারণে সামাজিক দূরত্ব বলবৎ থাকার কারণে এখন পরীক্ষা কেন্দ্রগুলি থেকে ২০০ বা ২৫০ জনের বেশি প্রার্থী পরীক্ষা দিতে পারবেন না।

আর এর ফলে পূর্বের তুলনায় অনেক বেশি পরীক্ষা কেন্দ্রের বর্তমানে প্রয়োজন পড়বে। এক্ষেত্রে পরীক্ষা কেন্দ্র বৃদ্ধির কারণে পরীক্ষা গ্রহণের খরচটাও অনেকটা বেড়ে যাবে। প্রসঙ্গত, পিএসসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামীদিনে পরীক্ষার খরচ বেড়ে গেলেও পরীক্ষার্থীদের কোন অধিক খরচা বহন করতে হবে না, এই অতিরিক্ত খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!