এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > চাকরি দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার, জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে!

চাকরি দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার, জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে!



তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানা সময় দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা যায় রাজ্যের বিরোধী দলগুলোকে। এক্ষেত্রে চাকরি দেওয়ার নাম করে তৃণমূল নেতাদের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে তোলা আদায়ও বিরোধীদের অভিযোগের মধ্যে থাকে। তবে গত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস অনেক আসন হারানোর পর, দলের তরফ থেকে দুর্নীতিকে বন্ধ করবার জন্য দেওয়া হয়েছিল সতর্কবার্তা। তবে কিছুদিন সেই সতর্কবার্তা কাজে লাগলেও, এবার পৌরসভা ভোটের মুখে দলেরই এক নেতার চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠায় প্রবল চাপে পড়ল তৃণমূল কংগ্রেস।

জানা গেছে, ইতিমধ্যেই সেই ব্যক্তিকে পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধৃতের নাম সীতারাম মুখোপাধ্যায়। গত 22 ডিসেম্বর তার বিরুদ্ধে বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন রিঙ্কু দাস। যেখানে তার দাবী ছিল, মৎস্য দপ্তরে চাকরি দেওয়ার জন্য সেই রিঙ্কু দাসের কাছ থেকে 12 লক্ষ টাকা চেয়েছিল এই তৃণমূল নেতা। এমনকি সাদা কাগজে সই করিয়ে তার কাছ থেকে আগেভাগেই 5 লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু টাকা নেওয়ার পর একটি নিয়োগপত্র তাকে দিলেও, সেই নিয়োগপত্র যখন চাকরিতে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন দেখা যায়, সেটা ভুয়ো।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এর পরই সেই সীতারাম মুখোপাধ্যায় বিরুদ্ধে বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। যার ফলস্বরূপ গত বুধবার রাতে সেই তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আর পৌরসভা নির্বাচনের মুখে এভাবে দলের এক নেতার বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠায় এখন রীতিমত ব্যাকফুটে তৃণমূল কংগ্রেস। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পৌর নির্বাচনে তৃণমূলকে এর মাশুল দিতে হবে। সব মিলিয়ে এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!