এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অবিস্বাসী চাচাকে আর সঙ্গে নিতে চান না ভাতিজা তেজস্বী

অবিস্বাসী চাচাকে আর সঙ্গে নিতে চান না ভাতিজা তেজস্বী



আসন্ন লোকসভা নির্বাচনকে লক্ষ্য করে বিহারের রাজনীতি বেশ সরগরম। আরজেডি সুপ্রিমো লালু প্রসাদ যাদবের পুত্র তেজস্বী প্রসাদ যাদব এদিন আগামী বছরে লোকসভা নির্বাচনে আরজেডি এবং জেডিইউ এর জোট গঠন প্রসঙ্গে সাফ নাকচ করে দিলেন। এদিন সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে তেজস্বী যাদব কোনো রাখঢাক না করেই জেডিইউ নেতা নীতীশ নীতীশ কুমারের সমালোচনা করেন। এমনকি তাঁকে বিশ্বাসঘাতক ঠাহর করে তেজস্বী প্রসাদ বললেন , ”নীতীশজী প্রত্যেকবার বিশ্বাসঘাতকতাই করেছেন। এমন কোনও কাছের মানুষ নেই যাদেরকে চাচা ঠকাননি। উনি মহাজোটে ফিরে আসতে চাইলেও সেখানে তাঁর জায়গা হবে না।” প্রসঙ্গত আরজেডি দলের সুপ্রিমো লালু প্রসাদ যাদব হলেও বর্তমানে তাঁর অনুপস্থিতিতে দলের কার্যভার পুত্র তেজস্বী প্রসাদের ওপরেই ন্যস্ত।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে বিহারে আরজেডি আশাতীত ফলাফল করে যা স্বাভাবিক ভাবেই নেতা তেজস্বী প্রসাদের ওপরে রাজ্যের মানুষের তথা দলীয় কর্মীদের বিশ্বাসযোগ্যতা বৃদ্ধি করেছে। জেডিইউ ছাড়া জোট গঠনের ক্ষেত্রে তেজস্বী প্রসাদের এই মতামতকে সমর্থন জানিয়েছেন তাঁর দলের অনেক নেতা কর্মীই। যদিও এই প্রসঙ্গে লালুপ্রসাদ যাদব এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া জানান নি। তথাপি রাজনৈতিক মহলের মনে প্রশ্ন আসছে জেডিইউ নেতা নীতীশ কুমারকে জোট গঠনের জন্যে আমন্ত্রন জানিয়ে লালুপ্রসাদ যাদব কী পুত্রের সাথে রাজনৈতিক বিরোধের ঝুঁকি নেবেন ! এদিকে তেজস্বী প্রসাদের এই বিবৃতির পরে স্বভাবতই কোনঠাসা অবস্থানে নীতীশ কুমার। ইতিহাস বলছে তেজস্বী প্রসাদের আনা অভিযোগ গুলির বাস্তব ভিত্তি রয়েছে। এবং নীতীশ কুমারের কিছু সিদ্ধান্তের জেরে বিহার সহ জাতীয় রাজনীতি একাধিক সময়ে সঙ্কটের মুখোমুখি হয়। যে গুলিকে গুরুত্ব দিলে তেজস্বী প্রসাদের বক্তব্যকে সমর্থন করা ছাড়া অন্য কোনো উপায় বাকি থাকেনা। অন্যদিকে লালু প্রসাদ যাদব কে ছাড়া মহাজোট গঠনে রাজি নয় কংগ্রেস সহ বিভিন্ন রাজ্যের আঞ্চলিক বিজেপি বিরোধী দলগুলি। এই পরিস্থিতিতে নজর রেখে রাজনৈতিক মহলের মতে, তেজস্বী প্রসাদ যাদব যদি নিজের সিদ্ধান্তে অটল থাকেন এবং নীতীশকে বাদ দিয়ে মহাজোট গঠন হয় সেক্ষেত্রে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের সামনে দুটি পথ খোলা থাকছে। এক, বিজেপির সঙ্গে জোট গঠন করে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করা অথবা অন্যথ্যায় একক রাজনৈতিক দল হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!