এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কেন্দ্রের নীতি না মানার হুঁশিয়ারি রাজ্যের, নিজস্ব নীতি তৈরি করবে রাজ্য, মন্তব্য পার্থর!

কেন্দ্রের নীতি না মানার হুঁশিয়ারি রাজ্যের, নিজস্ব নীতি তৈরি করবে রাজ্য, মন্তব্য পার্থর!



কেন্দ্রের বিভিন্ন নির্দেশিকা নানা সময়ে মানতে দেখা যায়নি রাজ্য সরকারকে। বিভিন্ন প্রকল্প থেকে শুরু করে বিভিন্ন নিয়ম, কেন্দ্রের সঙ্গে রাজনৈতিক বৈরিতার জন্য মাঝেমধ্যেই তা না মানার কথা শোনা গেছে রাজ্য সরকারের গলায়। আর এবার কেন্দ্রের জাতীয় শিক্ষানীতি বর্জন করে, নিজস্ব শিক্ষানীতি তৈরি করার কথা শোনা গেল রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কথায়। যাকে কেন্দ্র করে এখন ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

সূত্রের খবর, সোমবার রাজ্য বিধানসভায় শিক্ষা বাজেট নিয়ে আলোচনার সময় জবাবী ভাষণ দেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যেখানে তিনি বলেন, “জাতীয় শিক্ষানীতির কোন অংশই আমরা মানছি না। আমরা রাজ্যের আলাদা শিক্ষানীতি তৈরি করছি। তার জন্য বামপন্থী, দক্ষিণপন্থী এমনকি মনোজ টিগ্গার দলের লোকেদের সঙ্গেও কথা বলেছি।” জানা যায়, মূলত এদিন কংগ্রেস বিধায়ক অসিত মিত্রের প্রশ্নের উত্তরেই এই ধরনের মন্তব্য করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই ধরনের মন্তব্য করার পরেই শিক্ষানীতি নিয়ে একাধিক পরামর্শ দিতে শুরু করেন বিরোধী দলের বিধায়করা। এদিকে বাম বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্যর ভগৎ সিংয়ের “ধর্ম ও নাস্তিকতা” এবং জহরলাল নেহেরুর “লেটার্স ফ্রম এ ফাদার টু হিজ ডটার” এই দুটি বই পাঠ্যক্রমে ঢোকানোর দাবি জানান। তার পরিপ্রেক্ষিতেই সিলেবাস কমিটির সঙ্গে কথা বলার বিষয় তন্ময় ভট্টাচার্যকে আশ্বস্ত করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

অন্যদিকে সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলগুলোতে কম্পিউটার শিক্ষকের অভাব নিয়েও এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় দৃষ্টি আকর্ষণ করেন কংগ্রেস বিধায়ক নেপাল মাহাতো। জানা গেছে এর উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “2000 স্কুলকে ইতিমধ্যেই চিহ্নিত করা হয়েছে। সেগুলোতেই কম্পিউটার শিক্ষক পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ করা হবে।” অন্যদিকে জয়েন্ট এন্ট্রান্সে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে লিখিত পরীক্ষায় যোগ্যতা প্রমাণ করেই আসতে হবে বলেও এদিন বিধানসভায় জানিয়ে দেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের নীতির আরও একবার বিরোধিতা করতে দেখা যাবে রাজ্য সরকারকে। জাতীয় শিক্ষানীতি নিয়ে রাজ্য সরকারের অভিমত কি, তা নিয়ে অনেকদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। তবে এবার কেন্দ্রের জাতীয় শিক্ষানীতি যে রাজ্য সরকার মানবে না, তা কার্যত পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!