এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > যৌন নিগ্রহের হাত থেকে শিশুদের সুরক্ষিত রাখতে ঐতিহাসিক পদক্ষেপের পথে কেন্দ্র

যৌন নিগ্রহের হাত থেকে শিশুদের সুরক্ষিত রাখতে ঐতিহাসিক পদক্ষেপের পথে কেন্দ্র



কবির ভাষায়, “এ পৃথিবীকে শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি। নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।” কিন্তু ভারতবর্ষের মাটিতে কবির সেই কবিতাকে প্রাধান্য দেওয়ার বদলে বারবার সেই নবজাতকরাই যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। লজ্জায় মুখ ঢেকেছে গোটা সমাজ। কিন্তু এবার শিশুদের সেই যৌন নির্যাতনকে আটকাতে কঠোর পদক্ষেপ নিল কেন্দ্রীয় সরকার।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি দেশজুড়ে একের পর এক শিশু নিগ্রহের ঘটনায় পকসো আইনকে আরও শক্তিশালী করার দাবি জানানো হয়। এমনকি বিভিন্ন মহল থেকে আসা এই দাবিকে মান্যতা দিয়ে সেই আইন সংশোধনীও করে বেশকিছু রাজ্য। তবে এবার কেন্দ্রের পক্ষ থেকে সেই আইন আরও কঠোর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। সূত্রের খবর, প্রোটেকশন অফ চিল্ড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস আইনটিকে এবার সংশোধন করল কেন্দ্রীয় সরকার।

জানা গেছে, এই আইনের অন্যান্য ধারার পাশাপাশি 4, 5 এবং 6 নম্বর ধারাতে সংশোধনী আনা হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, 18 বছরের নিচে কোনো শিশু যদি এবার থেকে নৃশংস যৌন নিগ্রহের শিকার হন তবে অপরাধীর মৃত্যুদণ্ড পর্যন্ত হতে পারে। এমনকি বিভিন্ন সময় বলপূর্বক এই শিশুদেরকে পর্ণগ্রাফিতে নামানোর জন্য শারীরিক গঠনের বৃদ্ধি করতে হরমোন ইনজেকশন ব্যবহার করা হয়। যার জেরে নষ্ট হয় শিশুর সুন্দর শৈশব।

আর তাই এবারে সেই হরমোন ইনজেকশন ব্যবহার রুখতেও পকসো আইনের 9 নম্বর ধারাকে শক্তিশালী করার পদক্ষেপ নিল কেন্দ্র। সেক্ষেত্রে যদি কোনো ব্যক্তি তাঁর নিজস্ব ব্যবসায়িক স্বার্থে শিশুদের এই পর্নোগ্রাফি’র সাথে যুক্ত করেন তাহলে তাঁকেও কড়া শাস্তি দেওয়ার বিধান এই আইনে রাখা হয়েছে।

 

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পকসো আইন সংশোধনীর সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, “পকসো আইনের একাধিক ধারায় গুরুত্বপূর্ণ বদল আনা হয়েছে। 18 বছর বয়সের কম ছেলেমেয়েদের উপর গুরুতর যৌন নিগ্রহের ঘটনা ঘটলে অপরাধীর মৃত্যুদণ্ডের বিধান দেওয়ার ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছে কেন্দ্র।” অন্যদিকে পর্ণগ্রাফিতে শিশুদের ব্যবহার করলে যে অভিযুক্তদের গুরুতর শাস্তি দেওয়া হবে এদিন সেই কথাও উল্লেখ করেছেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী।

এদিন তিনি বলেন, “যৌন ব্যবসা ও পর্নোগ্রাফির জন্য শিশুদের শারীরিক গঠনের বৃদ্ধি কথাতে হরমোন ইনজেকশন ব্যবহার করা হয়। যা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। সেই কারণে আমরা এই হরমোন ইনজেকশন রুখতে অভিযুক্তদের কড়া শাস্তি দেওয়ার বিধান এনেছি।” সব মিলিয়ে এবার শিশুদের যৌন নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা করতে পকসো আইনে সংশোধনী করল কেন্দ্র।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!