এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > প্রায় 100% বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ছাপ্পা-গোলমাল এড়ানো যাচ্ছে না কেন? প্রশ্নের মুখে কমিশন

প্রায় 100% বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ছাপ্পা-গোলমাল এড়ানো যাচ্ছে না কেন? প্রশ্নের মুখে কমিশন



প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দফার ভোটে বিক্ষিপ্ত অশান্তি ও অভিযোগের ঘটনা তুলে ধরে চতুর্থ দফার ভোটে যাতে সমস্ত বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী দেওয়া যায় তার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আর্জি জানিয়েছিল বিরোধীরা। সেইমতো নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করার কথাও জানানো হয়েছিল।

চতুর্থ দফার ভোটে 96 শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখা হবে বলে নির্বাচন কমিশন জানালেও ভোটের সময় বিক্ষিপ্ত অশান্তির অভিযোগ উঠলেও কোথায় সেই কেন্দ্রীয় বাহিনী গেল তা নিয়ে এবার প্রশ্ন তুলতে শুরু করল বিরোধীরা। যদিওবা চতুর্থ দফার ভোটের পর পঞ্চম দফার ভোটে সমস্ত বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক আরিজ আফতাব।

তবে চতুর্থ দফার ভোট নিয়ে অভিযোগ কিন্তু কোনমতেই কমছে না। এদিন বাহিনীর কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সিপিএমের সুজন চক্রবর্তী বলেন, “অশান্তি দেখেও রাজ্য পুলিশ চুপ, আধা সামরিক বাহিনীও চুপ। মানুষের অধিকারে বাধা দেওয়ার চেষ্টা হবে, মানুষ যত প্রতিরোধ করবেন।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে প্রদীপ ভট্টাচার্য্য এদিন বলেন, “কমিশন 96 শতাংশ বুথে ভোটের জন্য বাহিনী দিচ্ছে, অথচ তারা কাজে আসছে না। প্রশাসন কিভাবে কমিশনের কথা অগ্রাহ্য করে কাজ করে যাচ্ছে!” অন্যদিকে বিজেপির পক্ষ থেকে বাবুল সুপ্রিয় জানান, “কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকায় আমরা সত্যিই হতাশ।”

এদিকে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা উপস্থিত থাকলেও যখন শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে বুথ দখলের অভিযোগ তুলছে বিরোধীরা, ঠিক তখনই এই ব্যাপারে পাল্টা কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছেন তৃনমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন বুথের ভিতরে সিআরপিএফ গুলি চালানোর ঘটনা নিয়ে তিনি বলেন, “এত বড় সাহস যে বুথের ভিতরে ঢুকে ওরা গুলি চালায়। কেন্দ্রীয় বাহিনীর বুথের বাইরে ঢুকে লাঠি চালানোরও ক্ষমতা নেই।” সব মিলিয়ে এবার বাংলার প্রায় বেশিরভাগ বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে কেন গন্ডগোল এবং সংঘর্ষ এড়ানো যাচ্ছে না তা নিয়েই এবার প্রশ্ন সকলের মুখে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!