এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > ‘সিবিআই-ইডি দিয়ে ভয় দেখাচ্ছে বিজেপি’ বিজেপির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন রাজ্য সরকারের হেভিওয়েট মন্ত্রী

‘সিবিআই-ইডি দিয়ে ভয় দেখাচ্ছে বিজেপি’ বিজেপির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন রাজ্য সরকারের হেভিওয়েট মন্ত্রী



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়তে শুরু করেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল শিবির। তৃণমূলের একের পর এক মন্ত্রী, বিধায়ক দল থেকে ইস্তফা দিতে শুরু করেছেন। গত মাসে মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এরপর তিনি চলতি সপ্তাহে বিধায়ক পদ ও দলের সদস্য পদ ছেড়ে দিলেন। এই পরিস্থিতিতে একের পর এক বিধায়ক দল ছাড়তে শুরু করেছেন। মধ্যে রয়েছেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। সম্প্রতি তৃণমূল ছেড়ে দিলেন ব্যারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত। এই পরিস্থিতিতে শাসকদলের অন্তর্দ্বন্দদের জন্য বিজেপিকেই দায়ী করলেন রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়।

তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল এখন একটি রোজকার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে নড়বড়ে হয়ে যাচ্ছে শাসক দলের ভিত। এদিকে শাসক দল তৃণমূলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও ভোটকুশলী পিকের বাড়বাড়ন্ত অনেককেই দলের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ করে তুলছে। দলের পুরনো হেভিওয়েটরা দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেছেন। দলের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন কোচবিহার দক্ষিণের তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামী। এরপর তিনি যোগদান করেছেন বিজেপিতে।

আবার, ব্যারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত দলের বিরুদ্ধে বারবার ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তিনি তৃণমূলের হয়ে লড়বেন না, এ কথাও জানিয়েছিলেন। এবারে তিনি তৃণমূল ত্যাগ করেছেন। প্রবল হয়ে উঠেছে তাঁর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা। এদিকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারিও ছেড়ে দিলেন তৃণমূল দল। এই পরিস্থিতিতে তৃণমূল দলের অন্তর্দ্বন্দ্বের জন্য বিজেপিকে দায়ী করেছেন রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী ও সেইসঙ্গে তৃণমূলের হাওড়া সদরের চেয়ারম্যান অরূপ রায় অভিযোগ করেছেন যে, তৃণমূলকে সবসময় ভয় দেখাচ্ছে বিজেপি। সিবিআই, ইডি সহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূল নেতাদের বারবার ভয় দেখাচ্ছে বিজেপি। তিনি অভিযোগ করেছেন, নির্বাচনের পূর্বে বিদেশে যাওয়া প্রচুর পরিমাণে কালোটাকা চোরা পথে রাজ্যে চলে এসেছে এই সময়। মন্ত্রীর এই অভিযোগের পর তার পাল্টা উত্তর করল বিজেপি শিবির।

এ প্রসঙ্গে বিজেপির হাওড়া সদরের সভাপতি সুরজিৎ সাহা জানালেন যে, সমবায় মন্ত্রী হিসেবে অরূপ রায় এর থাকাকালীন একাধিক সমবায় ব্যাংক বন্ধ হয়ে পড়েছে। তাই, কালো টাকা যে কোথায় গেছে, তা অত্যন্ত পরিষ্কার। তিনি আরও জানিয়েছেন, গরু পাচার, কয়লা পাচার নিয়ে দলের বেশ কিছু অংশ সরব হয়েছে বলেই তৃণমূল দলের ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। প্রসঙ্গত আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে তৃণমূল দলের ক্রমাগত ভাঙ্গনে সিঁদুরে মেঘ দেখছে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। স্থানে স্থানে যেভাবে ভাঙ্গন ঘটছে তৃণমূল দলের, তার ফলে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব, এমনটাই বিশ্লেষকদের মতামত।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!