এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > CAA প্রতিবাদের নামে সুবিধাবাদীরা হিংসা ছড়িয়েছে! মোহন ভাগবতের বিস্ফোরক অভিযোগে উঠল ঝড়!

CAA প্রতিবাদের নামে সুবিধাবাদীরা হিংসা ছড়িয়েছে! মোহন ভাগবতের বিস্ফোরক অভিযোগে উঠল ঝড়!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – নাগপুরে অনুষ্ঠিত বিজয় দশমীর বার্ষিক বক্তৃতায় আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত সংবিধানের ৩৭০ ধারার উচ্ছেদ, লাদাখ সীমান্তে চীনের আগ্রাসন, সেইসঙ্গে সিএএ বিরোধী আন্দোলন সম্পর্কে বেশ কিছু বক্তব্য রাখলেন। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান যে, সিএএ প্রতিবাদের নাম করে হিংসা ছড়িয়ে দিয়েছে সুবিধাবাদীরা। তাঁর এই মন্তব্যে বিতর্ক ছড়ালো দেশের বিভিন্ন মহলে।

প্রসঙ্গত নাগপুরে বিজয় দশমীর বার্ষিক বক্তৃতায় বিশেষ বক্তব্য রাখলেন আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত। মহর্ষি ব্যাস অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হলো এই বিশেষ অনুষ্ঠান। করোনা সংক্রমনের জন্য এ বছরে মাত্র ৫০ জন স্বেচ্ছাসেবীকে নিয়েই এই অনুষ্ঠান করা হলো। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে এমনটাই জানা যাচ্ছে।

আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত জানালেন যে, গত ২০১৯ সালে ৩৭০ ধারার উচ্ছেদ ঘটানো হয়েছিল। সেসময় সমগ্র দেশ কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তকে গ্রহণ করেছিল। এরপর চলতি বছরের ৫ ই আগস্ট রাম মন্দিরে ভূমি পূজার যুগান্তকারী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছিল। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, এই সমস্ত ঘটনার মধ্যে দিয়ে ভারতবাসী তাদের ধৈর্য ও সংবেদনশীলতার বিরাট পরিচয় রেখেছেন।

এরপরই সিএএ বিরোধী আন্দোলন সম্পর্কে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত জানালেন যে, সিএএ বিরোধী আন্দোলনের ফলে দেশজুড়ে উত্তেজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। তবে সিএএ বিরোধী আন্দোলন বেশি দূর এগোতে পারেনি। কারণ তারপরেই করোনার কারণে আন্দোলন ঝিমিয়ে আসে। তাঁর বক্তব্য, করোনাই ঢেকে দিয়েছে সমস্ত বিষয়কে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এ বিষয়ে তিনি আরো জানান যে, কেন্দ্রীয় আইন সিএএ কোনো ধর্মীয় সম্প্রদায়ের বিরোধী নয়। কিন্তু যারা এর বিরোধিতা করছে তারা ভারতের মুসলিম সম্প্রদায়কে বিভ্রান্ত করছে। বিরোধীদের বক্তব্য, দেশের মুসলিম জনসংখ্যাকে সীমিত করতেই এই আইন প্রণয়ন করেছিল কেন্দ্র। তাঁর অভিযোগ, প্রতিবাদের নাম করে সুবিধাবাদীরা হিংসা ছড়িয়েছে।

এরপর লাদাখ সীমান্তে চীনের আগ্রাসন নিয়েও বক্তব্য রাখতে গেল তাঁকে। এ প্রসঙ্গে তিনি জানালেন যে, ভারতের সেনা, কেন্দ্রীয় সরকার ও দেশবাসী ভারতের মাটিতে চীনের হামলার তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, চীনের থেকেও বেশি শক্তিশালী হতে হবে ভারতকে সামরিক দিক থেকে। এর সঙ্গে সঙ্গেই অর্থনীতি, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, বিভিন্ন প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়েও জোরদার পদক্ষেপ নিতে হবে ভারতকে।

এভাবে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বক্তব্য রাখলেন আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত। কিন্তু সিএএ বিরোধী আন্দোলন নিয়ে করা তাঁর বক্তব্যে শোরগোল পড়ে গেল দেশের বিভিন্ন মহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!