এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সিএএ নিয়ে বিজেপিতেই চরম দ্বন্দ্ব, জেনে নিন!

সিএএ নিয়ে বিজেপিতেই চরম দ্বন্দ্ব, জেনে নিন!



নাগরিকত্ব সংশোধনী ইস্যুতে বিরোধীদের চাপে এমনিতেই ব্যাকফুটে বিজেপি। আর এবার এই ইস্যুতে মহারাষ্ট্রে বিজেপির ভেতরকার দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে আসল। জানা গেছে, মহারাষ্ট্রের দুই বিজেপি নেতা বিনোদ বোরাদে এবং বালাসাহেব রোকাড়েকে ইতিমধ্যেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে বিরোধিতার জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকে।

মূলত, বিজেপি পরিচালিত পৌরসভাতেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী প্রস্তাব ফাঁস হওয়ায় এই রাজ্যের বিজেপি নেতৃত্ব চরম বিপাকে পড়েছে বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের। সূত্রের খবর, সম্প্রতি মহারাষ্ট্রের একটি পৌরসভায় নেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে একটি প্রস্তাব পাস হয়। যেখানে পৌরপ্রধান হিসেবে ছিলেন বিনোদ ফোয়াদ এবং উপপৌরপ্রধান ছিলেন বালাসাহেব রোকাড়ে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

 

যেখানে দল এই সংশোধনী আইনের পক্ষে, সেখানে কেন বিজেপি নেতৃত্ব থাকা সত্ত্বেও এই পৌরসভার প্রস্তাব পাশ হল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করে বিজেপির একাংশ। আর এর পরেই অস্বস্তি ঢাকতে এই দুই নেতাকে সাসপেন্ড করে গেরুয়া শিবির। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি বিজেপি এই দুই নেতাকে সাসপেন্ড না করত, তাহলে তাদের আরও অস্বস্তিতে পড়তে হত‌।

সেদিক থেকে তারা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী দলের ভেতরে থাকা এই দুই নেতাকে সাসপেন্ড করে ভালই করেছে। কিন্তু যেখানে বিজেপি দল শৃংখলার পরিচয় দেয়, সেখানে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের পক্ষে সওয়াল করলেও, কেন তাদের দলের পৌরসভার চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যান তার বিরোধিতা করলেন, এখন তা নিয়ে প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!