এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > বিএসএফ ইস্যুতে তৃণমূলকে তীব্র কটাক্ষ বিজেপির রাজ্য সভাপতির

বিএসএফ ইস্যুতে তৃণমূলকে তীব্র কটাক্ষ বিজেপির রাজ্য সভাপতির



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  আগামী বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে রাজ্যের হাল-হকিকত বুঝতেই তিন দিনের সফরে এসেছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ। আগামী বিধানসভা নির্বাচনকে সন্ত্রাস মুক্ত ও অবাধ করার পদক্ষেপ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেছিল নির্বাচন কমিশন। গতকাল বিএসএফ নিয়ে একটি বিস্ফোরক অভিযোগ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আজ তার জবাব দিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তীব্র কটাক্ষ করলেন তৃণমূলকে।

নির্বাচন কমিশনের কাছে বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে, ভোটার তালিকায় কারচুপি করা হচ্ছে। এ বিষয়ে বিজেপির অভিযোগ, রোহিঙ্গাসহ একাধিক অনুপ্রবেশকারীকে ভোটার তালিকায় আনা হয়েছে। অন্যদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় যে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীনস্থ বিএসএফ চাপ দিচ্ছে তৃণমূলকে। তৃণমূলের অভিযোগ, সীমান্ত এলাকায় একটি বিশেষ দলকে সাহায্য করতেই তাদের চাপ দিচ্ছে বিএসএফ। তবে, তৃণমূলের এই অভিযোগ সম্পূর্ণ খারিজ করেছে বিএসএফ।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আজ এ প্রসঙ্গেই মুখ খুললেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শাসকদল তৃণমূলকে তীব্র কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, সম্প্রতি গরু পাচার বন্ধ হয়ে গেছে, তাই পার্টির লোকেদের রোজগার বন্ধ হয়ে পড়েছে। একারণেই কষ্ট হচ্ছে তাদের। তাই দোষ দেয়া হচ্ছে বিএসএফকে। এভাবেই বিএসএফ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যর পাল্টা কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

অন্যদিকে, সাংবাদিকেরা তাঁকে প্রশ্ন করেছিলেন যে, সম্প্রতি আব্বাস সিদ্দিকি যে নতুন দল ঘোষণা করেছেন, তাতে কি বিজেপি লাভবান হতে চলেছে? এই প্রশ্নের উত্তরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন যে, বিজেপি কখনো অন্যের উপর লাভ-ক্ষতির হিসাব করে না। নিজেদের কৃতিত্বে জয়লাভ করতে চায় বিজেপি। তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেছেন যে, প্রশান্ত কিশোর যেখানে বলেই দিয়েছেন যে, ৩০ শতাংশ ভোট তৃণমূলের হাতেই আছে। তাহলে কেন ভয় পাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী( দিদিমণি)? কেন তিনি দুশ্চিন্তা করছেন?

প্রসঙ্গত, রাজ্যে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই উদ্দেশ্যে এডিজি আইন-শৃঙ্খলা জ্ঞানবন্ত সিং এর সঙ্গে রাজ্যের সাম্প্রতিক আইনশৃঙ্খলার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের বৈঠক হয়েছিল। এ বৈঠক এ রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে, তাতে সন্তুষ্ট হতে পারে নি কমিশন। কমিশনের পক্ষ থেকে একাধিক প্রশ্ন করা হয়েছিল জ্ঞানবন্ত সিংকে। কিন্তু তাঁর উত্তরে সন্তুষ্ট হতে পারেনি নির্বাচন কমিশন।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!