এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ব্রিটিশ মোঘল আমলেও রামনবমী ‘করে’ দেখানো দিলীপ ঘোষ এবার লকডাউনেও করে দেখানোর চ্যালেঞ্জ নিলেন

ব্রিটিশ মোঘল আমলেও রামনবমী ‘করে’ দেখানো দিলীপ ঘোষ এবার লকডাউনেও করে দেখানোর চ্যালেঞ্জ নিলেন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –দেশজুড়ে করোনা আবহের মধ্যে অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো উপলক্ষে ইতিমধ্যে জোরদার উৎসাহ দেখা যাচ্ছে গেরুয়া শিবিরে। উত্তরপ্রদেশের সাথে সাথে বিভিন্ন রাজ্যেও এই ভূমি পূজা পালনের ইঙ্গিত দিচ্ছে গেরুয়া শিবির। পশ্চিমবঙ্গও তার থেকে বাদ নয়। অন্যদিকে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি যথেষ্ট আশঙ্কাজনক। এই অবস্থায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় করোনা মোকাবিলায় দ্বিতীয়বার লকডাউন ফিরিয়ে এনেছেন রাজ্যে। তবে সেক্ষেত্রে টানা লকডাউন না করে সাপ্তাহিক লকডাউন এর পথেই চলছে রাজ্য। এই অবস্থায় গোটা আগস্ট মাস জুড়ে বিভিন্ন দিনে হবে রাজ্যে লকডাউন।

আর তার মধ্যে মাসের প্রথম বুধবার অর্থাৎ 5 ই আগষ্ট পড়েছে লকডাউন। এবং এই দিনই দীর্ঘদিনের অপেক্ষার পর রাম মন্দিরের ভূমি পুজো হতে চলেছে। বাংলার গেরুয়া শিবির ইতিমধ্যে বহুবার রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করেছে 5 ই আগষ্ট দিনটি লকডাউন এর বাইরে রাখতে। প্রসঙ্গত, হামেশাই লকডাউনের দিন বদল হচ্ছে রাজ্যে। কিন্তু 5 ই আগস্ট দিনটি কোন ক্ষেত্রেই বদল হয়নি।

এই ব্যাপারটি নিয়ে এবার রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগরে দিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মঙ্গলবার দিলীপ ঘোষ পলতায় আসেন চা চক্রে যোগ দিতে। আর সেখান থেকেই তিনি রাজ্য সরকারের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে জানিয়ে দিলেন, লকডাউন থাকলেও 5 ই আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমি পূজা উদযাপন হবেই এ রাজ্যে। বারবার লকডাউনের দিন বদলালেও 5 ই আগস্ট দিনটিকে যেকোনো ভাবেই বদলের তালিকায় রাখা হয়নি তা নিয়ে দিলীপ ঘোষ এ দিন বলেন, পরিকল্পনামাফিক বাংলার হিন্দু সমাজকে রাম মন্দির প্রতিষ্ঠার দিনটি উদযাপন করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। আর সে কারণেই দিশাহীন ভাবে লকডাউন এর দিন পরিবর্তন হলেও 5 ই আগস্ট দিনটিকে কোনমতেই পরিবর্তন করা হচ্ছে না।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে আগস্ট মাসের প্রথম রাজ্যজুড়ে সম্পূর্ণ লকডাউন পালন হতে চলেছে আগামীকাল। এই কদিন সাপ্তাহিক লকডাউন সার্বিক ভাবে পালন হয়েছে রাজ্যে। সাধারণ মানুষকেও ঘরে থাকতে দেখা গেছে। তবে আগামীকাল রাস্তায় বেরোলে পুলিশের হাতে যে ধরা পড়তে হবে সে কথা পরিষ্কার। আর তা নিয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতি জানিয়েছেন, পরিস্থিতি বুঝেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এদিন রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনকেও ব্যঙ্গ করতে ছাড়েননি দিলীপ ঘোষ। আর সেক্ষেত্রে তিনি ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং এর কথা টেনে এনেছেন।

অন্যদিকে, বেশ কয়েকদিন ধরেই গেরুয়া শিবিরের ছত্রছায়া থেকে কয়েকজনকে দেখা যাচ্ছে তৃণমূলের যেতে। সে বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করলে দিলীপ ঘোষ রীতিমতো তৃণমূলকে কটাক্ষ করে বলেন, “মাথা খারাপ না হলে কেউ তৃণমূলে যায়না। আর বিজেপির কারো মাথা খারাপ নয়। কেউ দল ছাড়বে না।” রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দলত্যাগের ব্যাপারটি গুরুত্ব না দিলেও ক্রমশ রাজ্যে ব্যাপারটি স্পষ্ট হচ্ছে। আর তা যে গেরুয়া শিবিরের যথেষ্ট চিন্তা বাড়াচ্ছে সে কথা স্পষ্ট।

অন্যদিকে, আগামীকাল 5 ই আগস্ট অযোধ্যা মন্দিরের ভূমি পুজো ঘিরে এরাজ্যেও যে রাজনৈতিক মহল উত্তপ্ত হতে চলেছে, সে কথা বলাই বাহুল্য। তবে গেরুয়া শিবির যে এই দিনটিকে নিয়ে যথেষ্ট উত্তেজিত তা দৃশ্যমান। এই অবস্থায় আগামীকাল প্রশাসন বনাম রাজ্য বিজেপি মহলের একটি পরোক্ষ লড়াই যে হতে চলেছে, তা নিয়ে নিঃসন্দেহ বাংলার রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!