এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > Breaking News, শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আর্জি জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের আদালতে

Breaking News, শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আর্জি জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের আদালতে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ বিকেলেই আগামী বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষিত করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই জারি হতে পারে আদর্শ আচরণ বিধি। এই পরিস্থিতিতে আজ অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আর্জি জানিয়ে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করলেন রাজ্যের প্রাক্তন এডভোকেট জেনারেল বিমল চট্টোপাধ্যায়।

আজ কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে বিশেষ আবেদন জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন রাজ্যের প্রাক্তন এডভোকেট জেনারেল বিমল চট্টোপাধ্যায়। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, রাজ্যের শীর্ষ আদালত আগামী বিধানসভা নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করুক। সেইসাথে কেন্দ্রীয় সরকার, রাজ্য সরকার, জাতীয় নির্বাচন কমিশনকেও এই মামলার অন্তর্ভুক্ত করেছেন তিনি।

তিনি আদালতে আবেদন জানিয়েছেন যে, কোনো রাজনৈতিক দল যেখানে সভা-সমাবেশের আয়োজন করবে, তার ২০০ মিটার দূরত্বের মধ্যে অন্য কোনো রাজনৈতিক দল যেন সভা-সমাবেশের আয়োজন করতে না পারে। প্রাক্তন এডভোকেট জেনারেল বিমল চট্টোপাধ্যায় আরও জানিয়েছেন যে, গত বিধানসভা ও লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যজুড়ে হিংসার পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। যা দেখে তিনি আতঙ্কিত। তিনি জানিয়েছেন, নির্বাচনে ভোট দান করতে গিয়ে সাধারণ মানুষকে যেন কোনো ভয়-ভীতির পরিবেশের মধ্যে পড়তে না হয়, তাই কলকাতা হাইকোর্ট এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করুক।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, আগামী বিধানসভা নির্বাচনকে শান্তিপূর্ণ, অবাধ, নিরাপদ রাখতে কমিশনের কাছে আবেদন জানিয়েছে একাধিক বিরোধীদল। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে তাদের আশ্বস্ত করা হয়েছিল। জানানো হয়েছিল, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে অধিক পরিমাণে কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠানো হবে। সম্প্রতি রাজ্যে পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া সহ বিভিন্ন জেলায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর রুটমার্চ শুরু হয়েছে। আগামী বিধানসভা নির্বাচন শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও নিরাপদ যাতে হতে পারে, সেদিকে বিশেষ ভাবে লক্ষ নির্বাচন কমিশনের। তাই নির্বাচনের নির্ঘন্ট ঘোষণার আগেই পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!