এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > Breaking News, অক্সিজেন নিয়ে বিশেষ নির্দেশিকা রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের

Breaking News, অক্সিজেন নিয়ে বিশেষ নির্দেশিকা রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পশ্চিমবঙ্গে তীব্র হারে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ১৬ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে দৈনিক সংক্রমণ। মাত্রাছাড়া ভাবে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজ্যজুড়ে শুরু হয়েছে অক্সিজেনের অভাব। আতঙ্কিত হয়ে বেশ কিছু মানুষ প্রয়োজন ছাড়াই বাড়িতে অক্সিজেন জমা করতে শুরু করেছেন। এই পরিস্থিতিতে অক্সিজেনের অভাব আরো বেড়েছে। সেই সঙ্গে শুরু হয়েছে কালোবাজারি। এবার রাজ্যের সমস্ত হাসপাতাল গুলোকে অক্সিজেনের অপচয় না করার বিশেষ নির্দেশ দিল রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে একটি নির্দেশিকা রাজ্যের সমস্ত হাসপাতালগুলোর কাছে পাঠানো হয়েছে। এই নির্দেশিকাতে জানানো হয়েছে যে, কোন ভাবেই অক্সিজেনের অপচয় না করতে। রোগীর অক্সিজেনের কতটা প্রয়োজন আছে? তা বোঝার পরই রোগীকে অক্সিজেন দিতে। অনেক সময় হাসপাতালে বা নার্সিং হোমে প্রয়োজন ছাড়াই বেশকিছু রোগীকে অক্সিজেন দেয়া হচ্ছে। আবার অনেক সময় যতটা প্রয়োজন, তার চেয়ে বেশি পরিমাণে অক্সিজেন দেয়া হচ্ছে রোগীকে। কিন্তু শরীরে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করতে পারে এটা।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এতে করে অক্সিজেনের অভাব আরো বাড়ছে। তাই এই বিষয়ে এবার বিশেষ পদক্ষেপ নিলো রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে জারি করা এই নির্দেশিকাতে স্পষ্ট জানানো হয়েছে যে, প্রয়োজন বুঝে যথাযথ মাপে রোগীকে যদি অক্সিজেন না দেওয়া হয়, তবে তাতে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হতে পারে। তাই এই বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অযথা অক্সিজেন না দেওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রয়োজন ছাড়াই রোগীকে অক্সিজেন দিলে যে কোনো ভালো ফল হতে পারেনা। সে কথাও নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে। প্রয়োজন অনুযায়ী কোন রোগীকে কতটা অক্সিজেন দিতে হবে? সে বিষয়ে স্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করে দেয়া হয়েছে এই নির্দেশিকাতে। রাজ্যে সম্প্রতি যেভাবে বাড়ছে অক্সিজেনের অভাব ও অক্সিজেন নিয়ে কালোবাজারি, সেই পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য দপ্তরের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞ মহলের দাবি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!