এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বড় খবর! অনুব্রত মন্ডলকে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেপ্তার হলেন তৃণমূলেরই প্রভাবশালী নেতা!

বড় খবর! অনুব্রত মন্ডলকে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেপ্তার হলেন তৃণমূলেরই প্রভাবশালী নেতা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বীরভূমে আবারও জোরদার গুঞ্জন তৃণমূল মহলে। বীরভূম তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল এবং গুসকরা পৌরসভার প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে তীব্র বিরোধিতা এতটাই উচ্চ সীমায় পৌঁছে গেছে যে প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর রীতিমতো গ্রেপ্তার হলেন পুলিশের হাতে। জানা যাচ্ছে, নিয়মিত তৃণমূল সভাপতিকে হুমকি দেওয়ার কারণে এই গ্রেপ্তারি। ইতিমধ্যে এই ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে বাংলার রাজনীতিতে প্রবল চাঞ্চল্য।

তবে হুমকির পেছনে জানা যাচ্ছে অন্য আরেকটি ঘটনা। সূত্রের খবর, বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল স্ত্রীর অসুস্থতার কারণে প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে কুড়ি লক্ষ টাকা ধার করেন। যা তিনি এতদিনেও ফেরত দেননি। এর ফলে ক্রমাগত কুড়ি লক্ষ টাকার জন্য চাপ দিতে থাকেন গুসকরা পৌরসভা প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর এবং টাকা আদায়ের চাপ দিতে গিয়ে রীতিমতো প্রবল হুমকি দেন তিনি অনুব্রত মণ্ডলকে।

একথা ধৃত কাউন্সিলর নিজেও স্বীকার করেছেন বলে জানা যাচ্ছে। অন্যদিকে অনুব্রত মণ্ডল প্রাক্তন কাউন্সিলরের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার ঘটনাটি পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন। অন্যদিকে নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায় তৃণমূলের অত্যন্ত পরিচিত মুখ এলাকায়। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি গুসকরা পুরসভার কাউন্সিলর ছিলেন। সম্প্রতি আউসগ্রামের এক তৃণমূল কর্মী থানায় গিয়ে অভিযোগ করেন নিত্যানন্দ বাবু দীর্ঘদিন ধরে বীরভূম তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে ফোন করে খুনের হুমকি দিয়ে চলেছেন ক্রমাগত।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই মঙ্গলবার দুপুরে গুসকরা স্কুল মোড় থেকে নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। প্রথমে গুসকরা ফাঁড়িতে রাখলেও পরবর্তীতে তাঁকে বর্ধমান আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে ধৃত নিত্যানন্দবাবু পরিষ্কার জানিয়েছেন, অনুব্রত মন্ডলের  স্ত্রীর অসুখের জন্য কুড়ি লক্ষ টাকা তিনি ধার দিয়েছিলেন তাঁকে। কিন্তু তিন-চার মাসের মধ্যে টাকা ফেরত দেবার কথা বললেও অনুব্রত মণ্ডল এতদিনেও টাকা ফেরত দেননি এবং এখন দিতে পুরোপুরি অস্বীকার করছেন।

এ প্রসঙ্গে নিত্যানন্দবাবু জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি টাকা ফেরত নেবেনই। প্রয়োজনে পরে আবার তিনি তাঁর টাকা ফেরত চাইবেন কেষ্ট মন্ডলের কাছে। যদিও অনুব্রত মণ্ডল পুরোপুরি এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছেন, তিনি নিত্যানন্দ মণ্ডলের কাছ থেকে কোনরকম টাকা ধার করেননি। তবে গুসকরার প্রাক্তন কাউন্সিলর যে নিয়মিত লোকজনকে হুমকি দিয়ে বেড়ান সে কথা তিনি বলেছেন। তাই শুধু নয়, নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায় নিজের কাছে অস্ত্র রাখেন বলেও অভিযোগ করেন অনুব্রত মন্ডল।

বিশেষজ্ঞদের মতে, তৃণমূলের অন্দরে এ ধরনের ঘটনা সামনে আসায় খুব স্বাভাবিকভাবেই শাসকদল অস্বস্তির মুখে। রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, বীরভূম জেলায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সর্বজনবিদিত। তাই এবার অনুব্রত মণ্ডল এবং নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে যে গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয়েছে তা আগামী দিনে আরও বড় একটি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের সূত্রপাত করতে চলেছে তৃণমূল শিবিরে বলে মনে করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে দলীয় নেতৃত্ত্ব কি পদক্ষেপ নেন, সেদিকেই নজর রাখছে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!